প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ১৪ অক্টোবর, ২০২১

বিশ্বে ফের বেড়েছে সংক্রমণ ও মৃত্যু

সারা বিশ্বে মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যু ফের বেড়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৯ হাজার ৪০ জন। একই সময়ে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৬২ হাজার ৪৫০ জন। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছিল ৫ হাজার ৪৯৫ জনের এবং আক্রান্ত হয়েছিলেন ৩ লাখ ৮৭ হাজার ২৫২ জন। আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

নতুন মৃত্যুর ফলে বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৪৮ লাখ ৮১ হাজার ৪৮৭ জনে। শনাক্ত বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩ কোটি ৯৪ লাখ ৭২ হাজার ৭১৪ জনে।

করোনার আঘাতে এখনো বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪ কোটি ৫৪ লাখ ৩১ হাজার ১৬৭ জন। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৭ লাখ ৩৭ হাজার ৫৮৪ জনের।

তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ কোটি ৪০ লাখ ৫০০ জনের এবং মৃত্যু হয়েছে ৪ লাখ ৫১ হাজার ২২০ জনের।

তালিকার তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬ লাখ ১ হাজার ৪৪২ জন আর সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ২ কোটি ১৫ লাখ ৯০ হাজার ৯৭ জনের।

তালিকার পরের স্থানগুলোতে রয়েছে যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, রাশিয়া, ফ্রান্স, ইরান, আর্জেন্টিনা ও স্পেন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব শনাক্ত হয়। এরপর দ্রুত দেশে দেশে ছড়িয়ে পড়ে ভাইরাসটি।

রাশিয়ায় একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড : রাশিয়ায় কোভিড-১৯-এ একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর নতুন রেকর্ড হয়েছে মঙ্গলবার। এ দিন কোভিডে ৯৭৩ জনের মৃত্যুর খবর এসেছে।

করোনাভাইরাস মহামারির শুরু থেকে রাশিয়ায় একদিনে এত মানুষের মৃত্যু এটিই সবচেয়ে বেশি। একইদিনে দেশটিতে নতুন করোনাভাইরাস শনাক্তও হয়েছে ২৮ হাজার ১৯০ জনের।

শনাক্তের সংখ্যা দ্রুত বেড়ে যাওয়া এবং বেশিসংখ্যক মানুষ ভাইরাস আক্রান্ত হতে থাকায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রাশিয়ার সরকারি কর্মকর্তারা।

দেশটির প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনকেও সোমবার টেলিভিশনে প্রচারিত একটি সরকারি বৈঠকে বারবার কাশতে দেখা গেছে। তার স্বাস্থ্য নিয়ে অন্যদের উদ্বেগের জবাবে পুতিন অবশ্য বলেছেন, তিনি সুস্থ আছেন এবং প্রতিদিনই করোনাভাইরাস পরীক্ষা করাচ্ছেন। তাই চিন্তার কোনো কারণ নেই।

তবে দেশে দৈনিক মৃত্যুর নতুন রেকর্ডের পরিপ্রেক্ষিতে টিকাদান কর্মসূচির গতি সঞ্চার করা প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন তিনি। নবনির্বাচিত আইনপ্রণেতাদের উদ্দেশে এক বক্তব্যে পুতিন আরো বেশি মানুষকে টিকা দেওয়ার প্রচেষ্টায় সক্রিয়ভাবে সমর্থন দেওয়ার জন্য তাদের আহ্বান জানিয়েছেন।

গত বছর করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর পর খুব কম সময়ের মধ্যেই রাশিয়া তাদের নিজস্ব স্পুৎনিক কোভিড টিকা তৈরি করে তা দিতেও শুরু করে। কিন্তু দেশটিতে টিকাদান চলছে ধীরগতিতে।

রাশিয়ার নাগরিকরা অনেকেই কর্তৃপক্ষের ওপর আস্থা না থাকা এবং নতুন চিকিৎসা পণ্য নিয়ে শঙ্কার কথা জানিয়েছেন। রুশ প্রধানন্ত্রী মিখাইল মিশুস্তিন বলেছেন, রাশিয়ার জনসংখ্যার প্রায় এক-তৃতীয়াংশকে টিকা দেওয়া হয়েছে।

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close