reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ০৪ মে, ২০২১

বিদেশে চিকিৎসা করতে যেতে খালেদার যা প্রয়োজন

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বেশ কিছুদিন ধরে রাজধানীর বসুন্ধরা এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। সোমবার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) নিয়ে যাওয়া হয়। করোনাভাইরাসে আক্রান্তের পাশাপাশি তিনি এখন অন্যের সহযোগিতা ছাড়া হাঁটতে পারছেন না।

উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়া যাবে কিনা এ বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিনউদ্দিন বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য বিদেশ নিয়ে যেতে হলে আদালতের সম্মতি লাগবে।

মঙ্গলবার সুপ্রিমকোর্টে গণমাধ্যমের কাছে এসব কথা বলেন অ্যাটর্নি জেনারেল।

আরও পড়ুন : মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করলেন মমতা

রাষ্ট্রের প্রধান আইনজীবী বলেন, দেশের ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১(১) ধারা অনুযায়ী খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয় সরকার। এখন তাকে বিদেশ নিতে হলে আমার মনে হচ্ছে আদালতে আসতে হবে। তারপরও আমি না দেখে বলতে পারছি না।

অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিনউদ্দিন আরও বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা দেশে হবে না বিদেশে সবকিছু দেখবে সরকার। সরকার প্রয়োজন মনে করলে আদালতে আসবে। কারণ এটা তো সরকারি আদেশ, সরকারই এটা নির্ধারণ করবে।

প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালের ৮ মার্চ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হয় খালেদার। পরে উচ্চ আদালত সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করা হয়। ওই বছরই জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় তাকে সাত বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

২০২০ সালের মার্চে দেশে করোনা সংক্রমণ দেখা দেয়ার পর বিএনপি নেত্রীকে দেশের বাইরে না যাওয়া ও বাড়িতে বসে চিকিৎসা নেয়ার শর্তে ছয় মাসের জন্য দণ্ড স্থগিত করিয়ে মুক্তি দেয়া হয়। এরপর দুই দফা বাড়ানো হয় দণ্ড স্থগিতের মেয়াদ।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
খালেদা জিয়া,বিএনপি,বিদেশে চিকিৎসা
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close