নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

  ১৩ জানুয়ারি, ২০২১

নাঙ্গলকোটে দু'গ্রুপের সংঘর্ষে ৭ বসতঘর ভাংচুর

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে দু'গ্রুপের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের বসতঘরসহ অন্তত ৭ টি ঘর ভাংচুর করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার আদ্রা দক্ষিণ ইউপির ভোলাইন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, আদ্রা দক্ষিণ ও আদ্রা উত্তর ইউনিয়নের সরকার দলীয় দু'টি গ্রুপ আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে প্রায় সময় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার রাতে ভোলাইন বাজারে অহিদুর রহমান ও মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মমিনের ছেলে ভুট্টার সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে উভয় জনের মধ্যে মারপিট হয়। পরে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই রাতে ভুট্টোর লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে অহিদুর রহমানের একটি বসতঘর ও আবদুল মমিনের ৩ টি ঘর ভাংচুর করে। এতে অহিদুর রহমান ক্ষিপ্ত হয়ে লোকবল নিয়ে ভোলাইন পূর্ব পাড়ার মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মালেকের ১টি বসত ঘর, ও একটি মুরগীর ফার্ম, মধ্য পাড়ার আবুল কাশেমের একটি ঘর ও বাড়ির বেড়া ভাংচুর করে।

এ বিষয়ে আব্দুল মমিন বলেন, গত একমাস পূর্বে মোবাইল চুরিকে কেন্দ্র করে ভুট্টো ফেসবুকে বিভিন্ন হুমকি দামকি দিয়ে আসছে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার তার মামা অহিদুর রহমানকে পিটিয়েও ক্ষান্ত হয়নি ভুট্টো। পরে তাদের বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে বাড়ি ঘর ভাংচুর করে। এতে প্রায় তাদের ১০ লাখ টাকা ক্ষয় ক্ষতি হয়। তিনি এ ঘটনার বিচারের দাবি জানান। 

এ ব্যাপারে ভুট্টো বলেন, তিনি দরবারে যাওয়ার সময় ভোলাইন বাজারে অহিদুর রহমানের সাথে ২০০১ সালের নির্বাচন নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে অহিদুর রহমান লোকজন নিয়ে তাদের একটি বসতঘর ও একটি মুরগীর ফার্ম ভাংচুর করে। প্রায় শতাধিক মুরগির বাচ্চা মারা যায়। এতে তাদের প্রায় ১৫ লাখ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়। তিনিও এ ঘটনার বিচারের দাবি জানান।              

এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার অফিসার ইনচার্জ বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। এখনও কোন পক্ষই অভিযোগ দেয়নি অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।  

পিডিএসও/এসএম শামীম
 

বসতঘর,ভাংচুর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়