ক্রীড়া প্রতিবেদেক

  ২৮ নভেম্বর, ২০২১

সব দিন এক নয়

টেস্ট অভিষেকে ছয় বছর পর প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন বাংলাদেশের উইকেটরক্ষক ব্যাটার লিটন দাস। পাকিস্তানের বিপক্ষে এমন সময় সেঞ্চুরি পেয়েছেন যখন তিনি সমালোচনার তীরে বিদ্ধ। সাদা বলের ক্রিকেটে ব্যাটে রান নেই লিটনের। সাদা বলে অধারাবাহিক লিটন টেস্টে যেন উল্টোরূপ। ধারাবাহিকভাবে রিটনের ব্যাটে রান। সেঞ্চুরির কাছে গিয়েও হতাশ হয়েছেন দুবার। চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম ইনিংসে করেছেন সেঞ্চুরি। তবে লিটন দাস মনে করেন প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি পেয়েছেন বলে দ্বিতীয় ইনিংসেও সেঞ্চুরি পাবেন এমন গ্যারান্টি কেউ দিতে পারবেন না।

পরশু লিটন যখন ফিফটি করেন তখন ব্যাট উঠিয়ে অভিবাদন জানাননি। হয়তো সেঞ্চুরির জন্য অভিবাদন তুলে রেখেছিলেন। বিগত তিন বছর ধরেই টেস্টে লিটনের ব্যাটে নিয়মিত রান এসেছে। নিজের সামর্থ্যরে পুরোটুকু দিয়েই খেলেছেন। তবে লিটন মনে করেন, টেস্ট ক্রিকেটে রান করা খুব সহজ কাজ নয়। চাইলেই কেউ সহজেই রান করতে পারেন না। প্রতিদিনই নতুন চ্যালেঞ্জ নিতে হয়। গতকাল দিনের খেলা শেষে অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে তার কণ্ঠে সে আভাসই পাওয়া গেল, ‘সবাই চেষ্টা করেছে ধারাবাহিক হওয়ার জন্য। আমি কতটুকু দিতে পারব, ফলাফল কতটুকু হবে জানি না কিন্তু আমি প্রক্রিয়া অনুসরণ করব। গত ছয়-সাত টেস্ট ধরে করে আসছি। একশ করেছি দেখে পরের দিন নামলে যে আবার একশ হবে তেমনটা না। টেস্ট ক্রিকেট অনেক কঠিন। শূন্য থেকে শুরু করতে হয়, সবসময়ই চ্যালেঞ্জের এবং কঠিন এটা। আমি চেষ্টা করব যেভাবে গত ছয়-সাত টেস্টে খেলেছি সেভাবে খেলার জন্য।’

নিজের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরির অনুভূতির কথা বলতে গিয়ে লিটন বলেন, ‘অনুভূতি তো সবসময় ভালো। কোনো ব্যাটসম্যান যদি সেঞ্চুরি করে তার থেকে বড় কিছু পাওয়ার থাকে না। গত দুই-তিনটি খেলায় আমি কাছাকাছি ছিলাম, জিম্বাবুয়েতে কাছাকাছি ছিলাম কিন্তু হয়নি। এটা ক্রিকেটের অংশ। এখন সেঞ্চুরি করেছি ভালো লাগছে। কিন্তু এটা যদি আরেকটু বড় করতে পারতাম তাহলে হয়তো দলের জন্য ভালো হতো।’

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close