ডা. এম ইয়াছিন আলী

  ২৪ জুন, ২০২১

রোগ প্রতিরোধে পুদিনাপাতা

পুদিনাপাতা শরীরে ব্যথানাশক ওষুধের মতোই কাজ করে। ব্যথানাশক যেসব ওষুধ বাজারে পাওয়া যায় তার সবকটিতেই পুদিনাপাতার ব্যবহার রয়েছে। এর কারণ হচ্ছে পুদিনাপাতার রস তাৎক্ষণিক ব্যথানাশক উপাদান হিসেবে কাজ করে। পুদিনাপাতার রস চামড়ার ভেতর দিয়ে নার্ভে পৌঁছে নার্ভ শান্ত করতে সহায়তা করে। তাই মাথাব্যথা বা জয়েন্টে ব্যথা উপশমে পুদিনাপাতা ব্যবহার করা যায়। মাথাব্যথা হলে পুদিনাপাতার চা পান করতে পারেন। অথবা তাজা কিছু পুদিনাপাতা চিবিয়ে খেতে পারেন। জয়েন্টে ব্যথায় পুদিনাপাতা বেটে লেপ দিতে পারেন। অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদানে ভরপুর পুদিনাপাতা দাঁত এবং মাড়ির যেকোনো সমস্যা সমাধানে সাহায্য করে। পুদিনাপাতার রস মিশ্রিত পানি দিয়ে প্রতিদিন কুলকুচা করার অভ্যাস করলে দাঁত এবং মাড়ির ব্যথা ও সমস্যা থেকে দূরে থাকতে পারবেন। এ ছাড়া মাড়ির ইনফেকশনজনিত সমস্যা দূর করতে তাজা পুদিনাপাতা চিবিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করুন। পুদিনাপাতায় রয়েছে ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, ভিটামিন-সি, ডি, ই এবং ভিটামিন বি-কমপ্লেক্স। যারা দুর্বল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার সমস্যায় ভোগেন তারা নিয়মিত পুদিনাপাতা খাওয়ার অভ্যাস করুন। সালাদ কিংবা অন্যান্য রান্নায় পুদিনাপাতা ব্যবহার করুন। খেতে পারেন পুদিনাপাতার শরবত। মোটকথা দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ও ব্যথামুক্ত থাকতে পুদিনাপাতা খুব বেশি কার্যকর।

লেখক : চেয়ারম্যান ও চিফ কনসালট্যান্ট, ঢাকা সিটি ফিজিওথেরাপি হাসপাতাল

------
ধানমন্ডি, ঢাকা

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close