নিজস্ব প্রতিবেদক

  ০১ মার্চ, ২০২১

ছাত্রদল-পুলিশ সংঘর্ষ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল ও লেখক মুশতাক আহমেদের কারাগারে মৃত্যুর ঘটনার প্রতিবাদে ডাকা জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সমাবেশ পুলিশের লাঠিপেটায় প- হয়ে গেছে। এর আগে এই ঘটনায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এতে ছাত্রদলের সহসভাপতি মামুন খানসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ছাত্রদলের বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে। গতকাল রবিবার সকাল ১১টার দিকে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সমবেত হতে থাকে। হাবিবুন নবী খান সোহেল প্রেস ক্লাবের চত্বরে এসে পুলিশের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। পুলিশ তাকে অনুমতি ছাড়া সমাবেশ করা যাবে না বলে জানিয়ে দেয়। ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ নেতারাও ছিলেন সেখানে।

------
পুলিশের সঙ্গে কথা বলার পরই সোহেল প্রেস ক্লাবের গেট দিয়ে বাইরে এসে ফুটপাতে নেতাকর্মী নিয়ে সমবেত হন। তখন পুলিশ অ্যাকশনে যায়; শুরু হয় লাঠিপেটা। ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা প্রেস ক্লাব চত্বরে আশ্রয় নিয়ে প্রতিবাদ জানাতে থাকে। সেখান থেকে ছাত্রদলের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়তে থাকে। দুই পক্ষের আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হয় প্রেস ক্লাব প্রাঙ্গণে।

এই ঘটনায় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিবুন নবী খান সোহেল ও ছাত্রদলের সহসভাপতি মামুন খানসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে বিএনপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। এর বাইরে ঘটনাস্থল থেকে আরো প্রায় ৩০ নেতাকর্মীকে আটক করার কথা জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি দাবি করেন, মুশতাকের মৃত্যুর প্রতিবাদে মানববন্ধনে অংশ নিতে প্রেস ক্লাবে তাদের পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মী জড়ো হয়েছিলেন। দায়িত্ব পালনে থাকা এটিএন বাংলা চ্যানেলের সিনিয়র ক্যামেরাপারসন মামুনসহ কয়েকজন সাংবাদিকও আহত হয়েছেন। এ ছাড়া পুলিশের লাঠিচার্জের ঘটনায় প্রেস ক্লাবের পাঁচ থেকে ছয়জন কর্মচারী আহত হন।

এ বিষয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) উপ-কমিশনার সাজ্জাদুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, ‘তারা (প্রতিবাদ সমাবেশের জন্য) কোনো অনুমতি নেয়নি। সাধারণ মানুষের যান চলাচল ও তাদের নিরাপত্তা বিধানে পুলিশ কাজ করেছে। উল্টো বিক্ষুব্ধরা পুলিশকে লক্ষ্য করেই ইট মেরেছে ও লাঠি নিয়ে আক্রমণ করেছে।’

জাতীয় প্রেস ক্লাবের তৃতীয়তলায় আকরাম খাঁ হলে জিয়া পরিষদের আয়োজিত সমাবেশ অংশ নিতে আসেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, ‘শাহবাগে আপনারা দেখেছেন কীভাবে সাধারণ ছাত্রদের ওপর পুলিশ হামলা চালিয়েছে। আজকে তার প্রতিবাদে প্রেস ক্লাবের সামনে ছাত্রদলের শান্তিপূর্ণ সমাবেশে পুলিশ অন্যায়ভাবে মারধর করেছে- এটা যদি হয় তাহলে তারা কেন বলে এদেশ গণতান্ত্রিক দেশ?’

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close