নিজস্ব প্রতিবেদক

  ১৩ অক্টোবর, ২০২১

কলা বৌ স্নানে মহাসপ্তমী উদযাপন

আজ অষ্টমী

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার মহাসপ্তমীতে গতকাল মঙ্গলবার শুরুতেই দেবীদুর্গার প্রতিবিম্ব আয়নায় ফেলে বিশেষ ধর্মীয় রীতিতে স্নান করানো হয়। এরপর করা হয় নবপত্রিকা স্থাপন। নবপত্রিকার আরেক নাম হয় কলা বৌ স্নান। এ ছাড়া দেবীর চক্ষুদানের মাধ্যমে দেবীদুর্গার প্রাণ প্রতিষ্ঠা করা হয়। পূজা শেষে হাতের মুঠোয় ফুল, বেলপাতা নিয়ে ভক্তরা মন্ত্র উচ্চারণের মধ্য দিয়ে এবারের পূজার প্রথম অঞ্জলি দেন দেবীর পায়ে। করজোরে কাতর কণ্ঠে জগজ্জননীর কাছে করোনামুক্ত বিশ্বের প্রার্থনা করেন ভক্তরা। ঢাকের বাদ্য, কাসর ঘণ্টা কিংবা শঙ্খধ্বনিতে দেবীর আরাধনার পাশাপাশি সবেতেই যেন ছিল একই আর্তি।

মহাষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে গত সোমবার শুরু হয় পাঁচ দিনব্যাপী সার্বজনীন শারদীয় দুর্গোৎসব। বিজয়া দশমীতে দেবী বিসর্জনের মধ্য দিয়ে আগামী ১৫ অক্টোবর দুর্গোৎসব শেষ হবে।

বিশুদ্ধ সিদ্ধান্ত পঞ্জিকানুযায়ী আজ বুধবার সকাল ৬টা ৪৫ মিনিটের মধ্যে দুর্গাদেবীর মহাষ্টমী বিহিত পূজা শুরু হবে। এদিন সকাল ৮টা ১৪ মিনিট থেকে ৯টা ২ মিনিটের মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে সন্ধিপূজা। অষ্টমী ও নবমী তিথির সন্ধিক্ষণে এই সন্ধিপূজা হয়। এ ছাড়া মহাষ্টমীতে হয় কুমারী পূজা। রামকৃষ্ণ মঠ, মিশনসহ কয়েকটি স্থানে প্রতি বছর কুমারী পূজা হয়। তবে এ বছর করোনা সংক্রমণের কারণে হচ্ছে না কুমারী পূজা।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের তথ্য অনুযায়ী এ বছর সারা দেশে স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলিয়ে সারা দেশে ৩২ হাজার ১১৮টি পূজামণ্ডপে দুর্গোৎসব হচ্ছে। আর রাজধানীতে পূজা হচ্ছে ২৩৮টি।

এ বছরও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে দুর্গাপূজা উদযাপনের জন্য রাজধানীসহ সারা দেশে বিশেষ নিরাপত্তাব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়েছে। পূজামণ্ডপগুলোতে আনসার, পুলিশ ও র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ ও র‌্যাবের পাশাপাশি প্রায় প্রতিটি মণ্ডপে স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী দায়িত্ব পালন করছে। ঢাকেশ্বরী মন্দির মেলাঙ্গনে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির উদ্যোগে কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে।

এ ছাড়া বিভিন্ন পূজামণ্ডপের প্রবেশপথে মেটাল ডিটেক্টর এবং ক্লোজ সার্কিট টেলিভিশন ক্যামেরা (সিসিটিভি) স্থাপন করা হয়েছে।

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close