শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধি

  ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১

নিখোঁজের ২৩ দিন পর ব্যবসায়ীর গলিত লাশ

শিবগঞ্জ থেকে নিখোঁজের ২৩ দিন পর ঢাকার আশুলিয়া থেকে পান ব্যবসায়ী মোফাজ্জল হোসেনের (৪৮) গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গতকাল শনিবার তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মোফাজ্জল হোসেন শিবগঞ্জ থানার পার লক্ষ্মীপুর চাঁদপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। গত ১৯ আগস্ট নিখোঁজ হন তিনি। গ্রেপ্তাররা হলেন শিবগঞ্জ উপজেলার ভাসুবিহার গ্রামের ফজলার রহমানের ছেলে রুবেল, ইসাহাকের ছেলে মিলন ও অমির উদ্দিনের ছেলে সামাদ।

মোফাজ্জল হোসেনের স্ত্রী রাশেদা বেগম জানান, তার স্বামী বিভিন্ন জেলা থেকে পান ক্রয় করে হাটবাজারে বিক্রি করেন। গত ১৯ আগস্ট সকাল ৮টায় তিনি পান কেনার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন। রাত ৯টায় তাকে ফোন করা হলে তিনি জানান মোকামতলায় আছেন। এরপর থেকে মোফাজ্জল হোসেনের ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও তার কোনো সন্ধান না পেয়ে গত ২৩ আগস্ট শিবগঞ্জ থানায় জিডি করা হয়। ই গ্রামের রুবেলের সঙ্গে মোফাজ্জল বেশি সময় কাটাতেন। এ ঘটনার পর থেকে রুবেলও নিখোঁজ ছিল। গত ৯ সেপ্টেম্বর লালমনিরহাট থেকে রুবেলকে ধরে আনা হয়। পরে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে রুবেল স্বীকার করেন যে, তারা তিনজন মিলে মোফাজ্জলকে আশুলিয়া মরাগাং নামক কাশবনে তাকে গলা কেটে হত্যা করে লাশ ফেলে যায়। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী শুক্রবার আশুলিয়া থানা পুলিশের সহযোগিতায় ঘটনাস্থল থেকে মোফাজ্জল হোসেনের গলিত লাশ উদ্ধার করা হয়।

ওসি সিরাজুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে মামলা করেছেন।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close