সিরিয়ার সামরিক স্থাপনায় ইসরায়েলের বিমান হামলা

প্রকাশ : ০৫ আগস্ট ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

সিরিয়ার সামরিক স্থাপনায় বিমান হামলা চালানোর কথা স্বীকার করেছে ইসরায়েল। গত সোমবার দামেস্কের কাছে কয়েকটি স্থাপনায় ওই হামলা হয় বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। হামলায় ক্ষয়ক্ষতির কথা স্বীকার করেছে সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম। ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) এক বিবৃতিতে বলেছে, গোলান উপত্যকায় বোমা হামলার চেষ্টার বদলা নিতেই গত সোমবারের হামলা হয়েছে।

গত রোববার রাতে গোলানের ইসরায়েল নিয়ন্ত্রিত অংশের কাছে বিস্ফোরক দিয়ে হামলা চালানোর চেষ্টা করা চার ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে তারা। ওই চার ব্যক্তি সুনির্দিষ্ট কোনো গোষ্ঠীর সদস্য কিনা, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এরপরও তেলআবিব ‘সিরিয়ার সরকারকেই দায়ী বলে বিবেচনা করছে’, বলেছেন ইসরায়েলের সামরিক

বাহিনীর মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট কর্নেল জোনাথন কর্নিকাস। আইডিএফ জানিয়েছে, তাদের গত সোমবারের হামলার লক্ষ্য ছিল সিরিয়ার সেনাবাহিনীর কুনেইত্রা ঘাঁটির ‘নজরদারি পোস্ট ও গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ব্যবস্থাপনা, বিমান বিধ্বংসী আর্টিলারি স্থাপনা এবং কমান্ড ও কন্ট্রোল সিস্টেমস’। সিরিয়ার মাটিতে হওয়া সব কর্মকা-ের জন্য আইডিএফ সিরিয়ার সরকারকেই দায়ী বলে মনে করে। ইসরায়েলি সার্বভৌমত্ব ক্ষুণœ করার চেষ্টা হলে সামনেও এ ধরনের অভিযান হবে, বিবৃতিতে বলেছেন তারা। সিরিয়ার সরকারি বার্তা সংস্থা সানা জানিয়েছে, গত সোমবার রাতে সামরিক

বাহিনী দামেস্কের কাছে আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা কার্যকর করেছিল।

কুনেইত্রার পাশাপাশি ইসরায়েলি বিমান ইরাক সীমান্তের কাছে অবস্থিত বুকামাল শহরেও হামলা চালিয়েছে বলে জানিয়েছে সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস। গত সোমবার ভোরে বুকামালে ওই হামলায় অন্তত ১৫ জন নিহত হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেছে তারা। দুই সপ্তাহ আগে সিরিয়ায় ইসরায়েলের বিমান হামলায় হিজবুল্লাহর এক যোদ্ধা নিহত হওয়ার পর থেকে দামেস্ক ও তেল আবিবের মধ্যে উত্তেজনার পারদ চড়তে শুরু করে। সিরিয়ায় হিজবুল্লাহর ওপর হামলার পাল্টায় ইরান সমর্থিত সশস্ত্র গোষ্ঠীটি পাল্টা হামলা চালাতে পারে বলেও ইসরায়েল আশঙ্কা করছে।

 

"