reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ৩১ ডিসেম্বর, ২০২১

সরকারি চাকরিজীবী পাত্র না পেয়ে ‘আত্মহত্যা’

প্রতীকী ছবি

গ্রামের সবাই তাকে একডাকে ‘ভালো মেয়ে’ বলে চিনতেন। পড়াশোনা করার পর দীর্ঘদিন ধরেই তার জন্য পাত্রের খোঁজ চলছিল। বিয়ের জন্য তরুণীর একটিই শর্ত ছিল—পাত্রকে সরকারি চাকরিজীবী হতে হবে! তবে শর্তপূরণ না হওয়ায় কোনো পাত্রকেই মনে ধরছিল না বছর ছাব্বিশের মেয়েটির।

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) সকালে গলায় ফাঁস লাগিয়ে মেয়েটি ‘আত্মহত্যা’ করেন বলে পরিবারের দাবি। ভারতের মুর্শিদাবাদের কান্দিতে তরুণীর ‘আত্মঘাতী’ হওয়ার কথা শুনে স্থানীয়দের দাবি, সরকারি চাকরিজীবী পাত্র না মেলায় মানসিক অবসাদে আত্মহত্যা করেছেন শিল্পী ঘোষ।

পুলিশ সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কান্দির খড়গ্রামের গুরুটিয়া গ্রামের বাসিন্দা শিল্পী ঘোষের ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পান বলে জানান পরিবারের সদস্যরা। তারাই খড়গ্রাম থানায় খবর দেন।

পুলিশ কর্মকর্তারা গলায় গামছা বাঁধা অবস্থায় শিল্পীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেন। এরপর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে শিল্পীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

কান্দি মহকুমা হাসপাতাল মর্গে শিল্পীর মরদেহের ময়নাতদন্ত করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ। শিল্পী আত্মহত্যা করেছেন বলে পুলিশের কাছে দাবি করেছে তার পরিবার। এ নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে খড়গ্রাম থানা।

শিল্পীর চাচা সঞ্জীব মণ্ডল বলেন, স্নাতক স্তরের পড়াশোনা শেষ করার পর থেকেই শিল্পীর জন্য পাত্রের খোঁজ করছিলেন দাদা। তবে জমিজায়গা, টাকাপয়সা রয়েছে এমন পাত্রদের দেখানো হলেও সরকারি চাকরিজীবী পাত্র ছাড়া বিয়েতে রাজি হয়নি শিল্পী। সূত্র : আনন্দবাজার

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আত্মহত্যা,সরকারি চাকরিজীবী,পাত্র,ভারত,মুর্শিদাবাদ,মরদেহ উদ্ধার,মেয়ে
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close