জ্ঞানের ফেরিওয়ালা ড. মো. মোয়াজ্জেম হোসেন

প্রকাশ : ১৯ নভেম্বর ২০২০, ১৫:৫০ | আপডেট : ১৯ নভেম্বর ২০২০, ১৫:৫২

তুহিন ভূইয়া

গ্রামে গ্রামে ঘুরে ছোট-বড় সবার মাঝে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দিতে বই হাতে নিয়ে বাড়ি বাড়ি পাঠকের কাছে পৌঁছে দেন ড. মো. মোয়াজ্জেম হোসেন। নিজের টাকায় বই কিনে পাঠকের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়ে বই পড়ার একটি আন্দোলন গড়ে তুলেছেন। ফোন করে বই চাইলে তা তিনি নিজেই পাঠকের কাছে পৌঁছে দেন।

ড. মো. মোয়াজ্জেম হোসেন নরসিংদী শহরের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রধান থেকে শুরু করে বিভিন্ন ব্যক্তি পর্যায়ে নিজে বই পৌঁছে দেন। তা তিনি এক সপ্তাহ পর ফেরৎ নিয়ে  অন্য কোন বইয়ের ফরমায়েশ নিয়ে আসেন । এভাবে তিনি  ঘরে ঘরে  জ্ঞানের আলো বিতরণ করে চলেছেন ।

ড. মো. মোয়াজ্জেম হোসেনের সাথে কথা বলে জানা যায়, স্কুল জীবন (১৯৮৫ সাল, তখন তিনি ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র) থেকেই বই সংগ্রহ শুরু করেন। এপর্যন্ত তার সংগ্রহে বই রয়েছে ৫ হাজারেরও অধিক। ব্যক্তি পর্যায়ে একটি বাড়ি ভাড়া নিয়ে নিজস্ব অর্থায়নে নরসিংদীতে গড়ে তুলেছেন ‘নরসিংদী পাবলিক লাইব্রেরি’।  যার প্রাতিষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয় ২০০০ সাল থেকে। বই পড়ার এই আন্দোলনকে সামনে এগিয়ে নিতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নিজ অর্থায়নে দুর্লভ বই সংগ্রহ করেন। যার মধ্যে উল্লেখ যোগ্য ১৭৪৩ সালের ভারতের প্রথম বাংলা ব্যাকরণ বই রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমার লাইব্রেরিতে সবচেয়ে বেশি বই পড়ে যুবকেরা। অনেক হতাশাগ্রস্থ যুবক মোটিভেশনাল বই পড়ে গুছিয়েছেন নিজেকে। অনেক যুবক বলেন, আমার স্বল্প জ্ঞানে অনেক কিছুই জানা ছিলনা, তাই জীবন ছিল ছন্নছাড়া। বই আমার জীবনে পরিবর্তন নিয়ে আসে। বই পড়ে আমি অনেক কিছু জানতে পাড়ি এবং আমার জীবনটাকে  সুন্দর ভাবে সাজাতে পেরেছি।’

ড. মোয়াজ্জেম বলেন, নরসিংদীতে তথা বাংলাদেশের যেকোনো প্রান্তে যদি কেউ লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠা করতে আগ্রহ প্রকাশ করেন সেক্ষেত্রে আমার পক্ষ থেকে যত প্রকার সহযোগিতা দরকার তা আমি করবো। এছাড়া নরসিংদীর শিবপুরের প্রতিটি ইউনিয়ন পর্যায়ে একটি করে লাইব্রেরি স্থাপনের কাজ করে যাচ্ছি।

লেখক : সমাজর্কম বিভাগ, সরকারি তিতুমীর কলেজ