বেড়ায় ১১ ফুট লম্বা অজগর উদ্ধার

প্রকাশ : ১৪ আগস্ট ২০২০, ১৫:২৪ | আপডেট : ১৪ আগস্ট ২০২০, ১৫:৪৩

বেড়া (পাবনা) প্রতিনিধি

পাবনার বেড়া উপজেলার যমুনা পারের একটি বাড়ি থেকে অজগর সাপ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার পেঁচাকোলা গ্রামের বেল্লাল হোসেনের বাড়ি থেকে অজগরটি উদ্ধার করা হয়।

পরে খবর পেয়ে বন বিভাগের কর্মকর্তারা সিরাজগঞ্জ ‘বঙ্গবন্ধু সেতু ইকোপার্কে’ অবমুক্ত করার জন্য সেটিকে গ্রহণ করেন। এলাকাবাসীর ধারণা বন্যার পানিতে ভেসে এসে সাপটি ওই স্থানে আশ্রয় নিয়েছিল।

সরেজমিন জানা গেছে, উপজেলার হাটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের যমুনা পারের পেঁচাকোলা গ্রাম এবারের বন্যায় প্লাবিত হয়ে পড়েছিল। বর্তমানে বেশির ভাগ বাড়ি থেকেই পানি নেমে গেছে। এ অবস্থায় শুক্রবার সকালে গ্রামের বেল্লাল হোসেনের বাড়ির ইটের পাঁজায় একটি বিশালাকৃতির অজগর সাপ দেখতে পাওয়া যায়। বাড়ির লোকজনের চিৎকার-চেঁচামেচিতে এলাকাবাসী সেখানে ছুটে গিয়ে সাপটিকে ধরে বস্তাবন্দী করে ফেলেন। সাপটি লম্বায় ১১ ফুট এবং এর ওজন ১৩ কেজি।

এদিকে সাপটিকে এক নজর দেখার জন্য উৎসুক জনতার ব্যাপক ভিড় দেখা যায়। পরে ঐদিন দুুপুর দেড়টার দিকে বন বিভাগের লোকজন সাপটিকে নিজেদের জিম্মায় নিয়ে বঙ্গবন্ধু সেতু ইকোপার্কে সেটিকে অবমুক্ত করার জন্য রওনা হন।

বাড়ির মালিক বেল্লাল হোসেনের বড় ভাই ইউসুফ আলী বলেন, আমার ছোট ভাইয়ের ফোন পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে সাপটিকে কয়েকজনের সহায়তায় উদ্ধার করি। এর কোনো ক্ষতি যাতে না হয় সে ব্যাপারে সতর্ক দৃষ্টি রেখে বন বিভাগের লোকজনের হাতে তুলে দেই। আমাদের গ্রামটি ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা। এখানে বন্যার পানিতে ভেসে আসা ছাড়া আর কোনো উপায়ে এই সাপ আসার সুযোগ নেই।

বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ রাজশাহীর বন্যপ্রাণী পরিদর্শক জাহাঙ্গীর কবির বলেন, অজগর শান্ত প্রকৃতির। মানুষের কোনো ক্ষতি করে না। সাপটির প্রতি সদয় আচরণ করায় এলাবাসীর প্রতি ধন্যবাদ জানাচ্ছি। ঘনবসতিপূর্ণ ওই এলাকায় সাপটি বন্যার পানিতেই ভেসে এসেছে বলে ধারণা করছি।

পাবনার সামাজিক বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন, খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে কর্মীদের পাঠিয়ে সাপটি আমাদের জিম্মায় নিয়েছি। সাপটিকে বঙ্গবন্ধু সেতু ইকোপার্কে আজই অবমুক্ত করা হবে।

পিডিএসও/এসএম শামীম/হেলাল