প্রতিদিনই বাড়ছে দাম

অস্থির হয়ে উঠছে ভোজ্যতেলের পাইকারি বাজার

প্রকাশ : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:৪২

​চট্টগ্রাম ব্যুরো
ফাইল ছবি

পেঁয়াজের পর সপ্তাহের ব্যবধানে অস্থির হয়ে ওঠেছে ভোজ্যতেলের দাম। প্রতিদিন দাম বাড়ছে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ভোজ্যতেলের বাজার। দেশের অন্যতম বৃহৎ পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে তেলের বাজারে প্রতিদিন বাড়ছে দাম। ৫ দিন আগে পাম তেল (সিটি পাম) প্রতিমণ ২ হাজার ৮৮০ টাকায় (প্রতিকেজি ৭৭.১৭ টাকা) বিক্রি হলেও দাম বেড়ে প্রতিমণ ২ হাজার ৯৬০ টাকায় (কেজিপ্রতি ৮০ টাকা) বিক্রি হয়েছে। এস আলম পাম তেল বিক্রি হয়েছে মণ ৩ হাজার টাকা। পাইকারিতে কেজি ৮০ টাকারও বেশি। অন্যান্য ভোজ্যতেলেরও দাম বেড়েছে।

ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ভোজ্যতেলের দাম বাড়ানো হলেও প্রশাসন কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না। তবে এজেন্টরা  বলছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের বুকিং রেট বেড়ে যাওয়াতে দেশের বাজারে এর প্রভাব পড়েছে। যার ফলে সারাদেশে অতিরিক্ত দামে ভোজ্যতেল বিক্রি হচ্ছে। তেলের বাজারেও নজরদারি বাড়ানোর জন্য সরকারের কাছে অনুরোধ জানান তারা।

খাতুনগঞ্জ পাইকারি বাজার সূত্রে জানা গেছে, সুপার পাম তেল আগে ২ হাজার ৪০০ টাকা বিক্রি হলেও তা গতকাল ৮০০ টাকা বেড়ে মণ ৩ হাজার ২০০ টাকায় (কেজি ৮৬ টাকা) বিক্রি হয়েছে। সিটি গ্রুপের সয়াবিন তেল বিক্রি হয়েছে প্রতিমণ ৩ হাজার ৪৩০ টাকা (কেজি ৯২ টাকা), যা গত সপ্তাহে ছিল ৩ হাজার ১০০ টাকা। এস আলম গ্রুপের সয়াবিন তেল সিটি গ্রুপের সয়াবিন থেকে মণ ৪০ টাকা কমে বিক্রি হয়েছে। সিটি পামও ৮০ টাকা বেড়ে মণ ২ হাজার ৯৬০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এস আলম পাম তেল বিক্রি হয়েছে মণ ৩ হাজার টাকা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ব্যবসায়ী নেতা জানান, বাজারে তেলের সংকট থাকলে মিল মালিকরা ডিও ছাড়ছেন কেন? উনারা তো ডিও বিক্রি বন্ধ রাখতে পারেন। এই ডিও’র কারণেই অনেক ব্যবসায়ী একদিনেই কোটিপতি হচ্ছেন, আবার অনেকে ফকির হয়ে যাচ্ছেন। 

পিএন এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী এমদাদুল হক রায়হান জানান, খাতুনগঞ্জে ব্যবসায়ীদের অবস্থা খুবই করুণ। তেলের সরবরাহ নেই, অথচ ডিও নিয়ে সবার মাতামাতি। আর পুরো খাতুনগঞ্জ এলাকা হচ্ছে প্রতিযোগিতামূলক বাজার। বিদেশ থেকে তেল আসলে এবং বুকিং রেট কমলে দাম কমে যাবে। সুতরাং সিন্ডিকেট করছে বলে আমার মনে হয় না। 

চাক্তাই-খাতুনগঞ্জ আড়তদার সাধারণ ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন জানান, আন্তর্জাতিকভাবে দাম বাড়লে আমাদের ব্যবসায়ীদের কি করার আছে? বাজারে তেলের সংকট থাকাতে কিছু মৌসুমি ব্যবসায়ী এসে অতিরিক্ত মুনাফার লোভে ডিও কিনছেন, যার ফলে দাম বেড়েই চলেছে। আমাদের ব্যবসায়ীদের মধ্যে কোনো ধরণের কোনও সিন্ডিকেট কাজ করেন না। 

ক্যাবের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি এস এম নাজের হোসাইন জানান, তেলের দাম দিন দিন দাম বাড়ছে। প্রশাসনের নজরদারি না থাকার কারণে তেল নিয়ে সিন্ডিকেটকারীরা সুযোগ নিচ্ছে। আগামীতে যদি তেলের বাজার নিয়ন্ত্রণে প্রশাসন কোনও ব্যবস্থা নেওয়া না হয়, তাহলে দাম আরও বাড়তে পারে। 

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভিন তিবরীজি জানান, আমাদের নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বাজারে অভিযান চলছে। তেলের বাজারেও অভিযান পরিচালনা করা হবে।

পিডিএসও/হেলাল