বিস্ফোরক : বৈরুত হতে পারে চেন্নাই

প্রকাশ : ০৭ আগস্ট ২০২০, ০৮:৫৩ | আপডেট : ০৭ আগস্ট ২০২০, ০৯:৪৩

পার্থ মুখোপাধ্যায়, কলকাতা

বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের পর, চেন্নাইতে মজুদ ৭০০ টন অ্যামনিয়াম নাইট্রেটের খবর ছড়াতেই আতঙ্ক ছড়িয়েছে। রাজধানী তামিলনাড়ুর বাইরে শুল্ক দফতরের তত্বাবধানে ওই বিস্ফোরক রয়েছে।

আধিকারিকরা জানিয়েছেন, প্রায় ৫ বছর আগে ওই বিপুল পরিমাণ অ্যামনিয়াম নাইট্রেট বাজেয়াপ্ত করেছিল চেন্নাই বন্দর কর্তৃপক্ষ। তামিলনাড়ুর শিবকাশী আতসবাজির জন্য বিখ্যাত। বাজি তৈরির জন্যই ওই বিস্ফোরক নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। কিন্তু সঠিক কাগজপত্র দেখাতে না পারায়, ওই বিপুল পরিমাণ অ্যামনিয়াম নাইট্রেট বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল। যদিও বন্দর কর্তৃপক্ষের দাবি, ওই অ্যামনিয়াম নাইট্রেট বন্দরে আর নেই।

পিআর ডিপার্টমেন্টের এক অফিসার জানিয়েছেন, প্রায় ৩৬টি কন্টেনার অ্যামনিয়াম নাইট্রেট বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল। প্রতিটি কন্টেনারে ২ টন করে বিস্ফোরক ছিল। বহুদিন আগেই তা স্থানান্তরিত করা হয়েছে। এখন তা শুল্ক দফতরের তত্ত্বাবধানে আছে।

এক প্রবীণ শুল্ক দফতরের আধিকারিক জানিয়েছেন, আপাতত সত্ত্ব কন্টেনার ডিপোয় ৬৯৭ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুত আছে। শ্রী আম্মান কেমিক্যালসের থেকে বেআইনি পথে আমদানি করা হচ্ছিল। ওই বিস্ফোরক খালি করার প্রক্রিয়া চলছে। মামলাটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। ই-অকশনের মাধ্যমে ওই বিস্ফোরক খালি করার পরিকল্পনা রয়েছে। শীঘ্রই এই সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য দেবেন বলে জানিয়েছেন আধিকারিক।

উল্লেখ্য, মনে করা হচ্ছে মজুদ বিস্ফোরক থেকে বৈরুতে বিস্ফোরণ হয়েছিল। অন্তত ১৩৭ জন প্রাণ হারিয়েছেন। হাজার হাজার মানুষ জখম হয়েছেন। তারপরই মজুদ রাখা বিপুল বিস্ফোরক খালি করার দাবি জানিয়েছেন পিএমকে প্রধান ডক্টর রামাদস।

পিডিএসও/হেলাল