চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

  ২৬ নভেম্বর, ২০২১

তদবির ছাড়াই পুলিশে চাকরি

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৩৪ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৫৯ জন

স্বপ্ন পূরণ হলো চাঁপাইনবাবঞ্জের ৩৪ তরুণ-তরুণীর। এরমধ্যে ২৯ তরুণ ও ৫ তরুণী রয়েছেন। ঘুষ-তদবির ছাড়াই পুলিশে চাকরি হয়েছে তাদের। পূরণ করতে পেরেছেন বাবা-মায়ের স্বপ্ন। এখন তারা বাংলাদেশ পুলিশের গর্বিত সদস্য। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা পুলিশ লাইন্সে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল (টিআরসি) পদে মনোনীতদের নাম ঘোষণা করেন পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রকিব।

ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল (টিআরসি) পদে মনোনীতদের সঙ্গে কথা হয় প্রতিবেদকের। কনস্টেবল পদে মনোনীত হয়েছেন মো. সারওয়ার হোসেন। বাড়ি সদর উপজেলার বালুগ্রাম। নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র। সারওয়ার বলেন, আমি বাংলাদেশ পুলিশের সদস্য হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদি ছিলাম। আমার বাবাও পুলিশের সদস্য ছিলেন। এখন আমিও পুলিশের সদস্য নির্বাচিত হয়েছি। এটা গর্বের।

সদর উপজেলার চরঅনুপনগর ইউনিয়নের চর বাসুদেবপুরের মো. আল মারুফ। গোদাগাড়ী সরাকারি কলেজের একাদশ প্রথম বর্ষের ছাত্র। আল মারুফ বলেন, ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন ছিল পুলিশে চাকরি করার। আমার সেই প্রত্যাশা পূরণ হয়েছে। আগামীতে দেশের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখবো। কোন ঘুষ-তদবির ছাড়াই চাকরি হয়েছে এটা অবিশ্বাস্য। কল্পনায় ছিল না মাত্র ২০০ টাকায় পুলিশে চাকরি হবে। আবেদনের সময় চালান ফলমে ১০০ টাকা খরচ হয়েছে।

নারী কনস্টেবল হিসেবে নির্বাচিত সৈয়দা সুরাইয়া পারভিন বলেন, আমরা সবাই নিজ যোগ্যতায় মনোনীত হয়েছি। কোন ধরনের ঘুষ-তদবিরের প্রয়োজন হয়নি। চাকরি নয়, সেবা- স্লোগানে উদ্বুদ্ধ হয়ে পুলিশের চাকরিতে এসেছি। দেশ সেবার জন্য কাজ করে যেতে চাই।

পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রকিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আইজিপি শতভাগ স্বচ্ছতার সঙ্গে এ নিয়োগ সম্পন্ন করার জন্য কড়া নির্দেশনা দিয়েছিলেন। পেশাদারিত্ব, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে এ নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুঠিয়া সার্কেল) মো. ইমরান জাকারিয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (রায়গঞ্জ সার্কেল) মো. ইমরান রহমান, সদর থানার ওসি মো. মোজাফফর হোসেন।

এদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি জানান, বিনাটাকায় ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিয়োগ পেলেন ৫৯ জন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে কনস্টেবল পদে চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত হওয়া পুলিশ সদস্যদের ফুল দিয়ে বরণ করেছেন পুলিশ সুপার মো. আনিসুর রহমান। পুলিশ লাইন্স ড্রিলশেডে পুলিশ সুপার চূড়ান্তভাবে নির্বাচিতদের নাম ও রোল নম্বর ঘোষণা করেন।

এ সময় জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মোল্লা মোহাম্মদ শাহীন, প্রেস ক্লাবের সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামি, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু সাঈদসহ পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close