রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি

  ০২ ডিসেম্বর, ২০২০

খেজুরগাছ প্রস্তুতিতে গাছিদের ব্যস্ততা

কুড়িগ্রামের রাজারহাটের সাতটি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে খেজুরগাছ প্রস্তুতির কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন গাছিরা। গাছের মাথা পরিষ্কার করে রস নামানোর প্লট তৈরিকে গাছঝোড়া বলে।

স্থানীয়রা বলেন, উপজেলার বিভিন্ন পল্লীগ্রাম ও হাট-বাজারে উঠতে শুরু করেছে খেজুরের রস। সুস্বাদু খেজুরের পাটালি-গুড় ও রস উৎপাদনে রাজারহাট উপজেলা প্রসিদ্ধ। খেজুরের রস ও গুড় দিয়ে তৈরি করা হয় হরেক রকমের পিঠাপুলি, ক্ষীর ও পায়েস। অযত্ন অবহেলায় বেড়ে ওঠা খেজুরগাছের কদর এখন অনেক বেশি। সকাল থেকে শুরু হয় খেজুরগাছ ঝোড়ার কাজ। কিছুদিন পড়ে এসব গাছ থেকে শুরু হয় রস সংগ্রহের পালা। রস সংগ্রহ ঘিরে এই জনপদের গ্রামীণ জীবনে শুরু হয়ে কর্মচাঞ্চল্য। কথা হলে খেজুর রস বিক্রেতা আবদুস সাত্তার জানান, তিনি ৩৬ বছর ধরে খেজুরের রস বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছেন। এখন তার পরিবার অনেকটাই সচ্ছল। তিনি আরো বলেন, মৌসুম শুরুর আগে আমরা গাছঝোড়া শুরু করেছি। আগাম রস নামাতে পারলে বাজার দাম ভালো পাওয়া যাবে।

------
এ ব্যাপারে রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরে তাসনিম বলেন, খেজুরগাছ এই উপজেলার অন্যতম সম্পদ। কোনো অসাধু ব্যবসায়ী যাতে ভেজাল খেজুরের গুড় উৎপাদন করতে না পারে সে ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসন সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

 

 

"

আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়