কক্সবাজার প্রতিনিধি

  ২৩ নভেম্বর, ২০২১

চকরিয়ায় শীর্ষ নেতাদের মদদে সক্রিয় বিদ্রোহীরা

প্রতীকী ছবি

আগামী ২৮ নভেম্বর কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ১০ ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নির্বাচনে ১০ইউপিতে আওয়ামী লীগ থেকে দশজনকে দেওয়া হয়েছে নৌকা প্রতিক। কিন্তু এই ১০ইউপির মধ্যে ৭টিতেই রয়েছে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী। এ ৭ ইউনিয়নের ৮ বিদ্রোহী প্রার্থীকে দল থেকে বহিস্কার করা হলেও জেলা-উপজেলা পর্যায়ের কিছু শীর্ষ নেতাদের মদদে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন প্রার্থীরা। যার ফলে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে দেখা দিয়েছে হতাশা।

জানা গেছে, উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি নুরে হোছাইন আরিফকে। আর এই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন মোহাম্মদ আলী চৌধুরী।

পূর্ব বড় ভেওলা থেকে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত নোবেলের স্ত্রী ফারহানা আফরিন মুন্নাকে। আর আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে মাঠে রয়েছেন কামরুজ্জামান সোহেল।

কৈয়ারবিল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা জন্নাতুল বকেয়া রেখাকে। এই ইউপিতে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন আফজাল-উর রহমান চৌধুরী।

পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীকে। আর এতে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন অ্যাডভোকেট রবিউল এহেছান।

কোণাখালী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেয়া হয় জাফর আলম ছিদ্দিকীকে আর মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান দিদারুল হক সিকদার।

লক্ষ্যারচর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে মহি উদ্দিন মো. আওরঙ্গজেব বুলেটকে। আর এতে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন মো. সাইকুল ইসলাম।

কাকারা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান শওকত ওসমান। আর আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন শাহাবউদ্দিন ও মোহাম্মদ ইছমত-ইলাহী।

উপজেলার ঢেমুশিয়া, কৈয়ারবিল ও ভেওলা মানিকচর (বিএমচর) ইউনিয়নে কোন বিদ্রোহী প্রার্থী না থাকলেও বেকায়দায় রয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা।

তৃণমুল আওয়ামী লীগের নেতাদের অভিযোগ, আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চকরিয়া উপজেলার ১০ ইউনিয়নে নৌকা প্রতিক দিয়েছেন। তাই আওয়ামী লীগের সকল স্তরের নেতা-কর্মীদের দায়িত্ব সব ভেদাভেদ ভুলে নৌকা প্রতিকের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে কাজ করা।

কিন্তু জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের অনেক শীর্ষ নেতা বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে পরোক্ষভাবে কাজ করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের শীর্ষ নেতারা মাঝে মাঝে নির্বাচনী বিভিন্ন সভা-সমাবেশে বক্তব্য রাখছেন। নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনাও করছেন। কিন্তু তাদের এই কর্মকাণ্ডেও আস্থা রাখতে পারছেনা তৃণমুলের নেতা-কর্মীরা। যার কারণে তৃণমুল পর্যায়ের নেতা-কর্মী-সমর্থকরা দ্বিধাদ্বন্দে পড়েছেন। এতে করে নৌকার প্রার্থীরা বেশ বেকায়দায় রয়েছেন। ফলে ১০ ইউপিতে নৌকার বিপর্যয়ের আশংকা দেখা দিয়েছে।

কাকারা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শওকত ওসমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার উপর আস্থা রেখে আমাকে নৌকা প্রতিক দিয়েছেন। কিন্তু কিছু কিছু প্রার্থী নৌকা মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন। বিদ্রোহী প্রার্থী থাকলেও জনগণ আমার পক্ষে রয়েছেন।

ওই ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থী সাহাবউদ্দিন বলেন, জনগণ আমাকে ভোটে দাঁড় করিয়েছেন। জনগণের ইচ্ছায় আমি প্রার্থী হয়েছি।

চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজবাউল হক বলেন, ইতোমধ্যে ৮ বিদ্রোহী প্রার্থীকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। ওইসব বিদ্রোহী প্রার্থীদের নির্বাচন থেকে সরে এসে নৌকা প্রতিকের প্রার্থীদের পক্ষে কাজ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, জেলা-উপজেলা পর্যায়ের আওয়ামী লীগের বেশ কিছু নেতা পরোক্ষভাবে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন। যার কারণে বিএনপি-জামায়াতের নেতা-কর্মীরাও ওইসব বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন নৌকার ভরাডুবির জন্য।

এব্যাপারে জানতে চাইলে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, দলের বিরুদ্ধে যারাই করবে তাদের আওয়ামী লীগে কোন স্থান নেই। চকরিয়ায় আওয়ামী লীগের ৮ বিদ্রোহী প্রার্থীকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। দলের সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান জানিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীদের নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর জন্যও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
চকরিয়া,ইউপি নির্বাচন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close