মোঃ রফিকুল ইসলাম রাজা, শিবচর (মাদারীপুর)

  ৩০ জুলাই, ২০২১

শিবচরে আড়িয়াল খাঁ নদের ভাঙন আতঙ্কে ৫ শ পরিবার

ছবি : প্রতিদিনের সংবাদ

মাদারীপুরের শিবচরে আড়িয়াল খাঁ নদের ভাঙন দেখা দিয়েছে। আর এ ভাঙনে গত এক সপ্তাহে বেশ কয়েকটি বসতবাড়ি ও প্রায় ৫০ বিঘা ফসলি জমি নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। ভাঙন এলাকার মধ্য উপজেলার শিরুয়াইল, নিলখী, বহেরাতলা দক্ষিণ, সন্যাসীরচর, বন্দরখোলা ও চরজানাজাত ইউনিয়নের নদীপাড়ের মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। এসব এলাকার প্রায় ৫ শ পরিবার নির্ঘুম কাটাচ্ছেন। অনেকেই আতঙ্কে ঘরবাড়ি নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিচ্ছে। কেউ আবার অন্য এলাকায় জমি কেনার জন্য খুঁজছেন।

বৃহস্পতিবার বিকালে সরেজমিনে উপজেলার বহেরাতলা দক্ষিণ ইউনিয়নের কলাতলা ও বহেরাতলা গ্রাম, শিরুয়াইল ইউনিয়নের পশ্চিম কাকৈর ও নিলখী ইউনিয়নের চরাঞ্চলের কয়েকটি গ্রামে গিয়ে জানা যায়, গত এক সপ্তাহে কলাতলা এলাকায় ৩টি বসতবাড়ি ও ৩০ বিঘা ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

এছাড়াও এই গ্রামে ভাঙনের মুখে রয়েছে অসংখ্য বাড়ি, রাস্তাঘাট, একটি কলেজ, ১ টি হাইস্কুল, ২ টি কমিউনিটি ক্লিনিক, ২ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফসলিজমিসহ নানান স্থাপনা। তবে ভাঙন ঠেকাতে গত ১৫ জুলাই থেকে উপজেলার শিরুয়াইল ও বহেরাতলা দক্ষিণ ইউনিয়নের ভাঙন কবলিত এলাকায় জিও ব্যাগ ফেলেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। এতে এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করের বলেন, যেভাবে ভাঙছে তাতে স্থায়ী নির্মাণ না করলে বাড়ি ঘর হারাতে হবে তাদের।

বহেরাতলা ইউনিয়নের কলাতলা গ্রামের নান্নু মাদবর নামে এক ভুক্তভোগী বলেন, গত কয়েকদিনে আমার ৩ বিঘা জমি আড়িয়াল খাঁ নদীতে কেড়ে নিছে। এখনো ভাঙছে। এছাড়াও আমার বসতবাড়ি ভাঙনের মুখে। যেভাবে ভাঙন শুরু হয়েছে তা চলতে থাকলে এ বছর ঘরবাড়ি টিকবে না। আমাদের দাবি দ্রত এ এলাকায় বাঁধ নির্মাণ করা হোক।

আবদুর রব মাদবর নামে আরেক ব্যক্তি বলেন, ‘প্রতি বছরই এখানে নদী ভাঙে। কয়দিন ধইরা (ধরে) পানি বাড়ত্যাছে। আমাগো বাড়িঘর ভাইঙ্গা যাচ্ছে। এভাবে ভাঙতে থাকলে আমাগো বাড়ি ঘর আর থাকবো না।

সাজেদা বেগম নামে আরেক বৃদ্ধ্যা বলেন, বাবা কয়েক বছর আগে ওই গ্রাম থেকে এখানে আইছি।বাড়ি ঘর সব নিয়ে গেছিলো। এখন আবার এখানে ভাঙতে ভাঙতে আমাগো বাড়ির দিকে নদী চলে আসছে। আপনারা (সাংবাদিকেরা) সরকাররে কিছু করতে কন (বলেন)। আমাগো বাঁচান।

মাদারীপুর পানি উন্নয়ন  বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পার্থ প্রতীম সাহা বলেন , শিবচর উপজেলার শিরুয়াইল, বহেরাতলা ও নিলখী ইউনিয়নের ভাঙনকবলিত এলাকায় ভাঙন ঠেকাতে জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে। গত ১৫ জুলাই থেকে তিন দিনে শিরুয়াইল ইউনিয়নের ভাঙন কবলিত এলাকায় ১০ হাজার ৮শত ২০টি জিও ব্যাগ ফেলা হয়েছে। বহেরাতলা এলাকায় ১৫ হাজার জিও ব্যাগ ফেলা হবে। এর মধ্য গত বুধবার  ৪০২৯ ব্যাগ ও বৃহস্পতিবার ৩৬৯৬ ব্যাগ ফেলা হয়েছে। এছাড়াও আগামী শুকনো মৌসুমে শিবচরের সন্যাসীরচর, শিরুয়াইল, বহেরাতলা এবং নিলখী ইউনিয়নের নদী ভাঙন এলাকায় তিনটি পয়েণ্টে ‘রিভার ব্যাঙ্ক প্রটেকশন’ এর কাজ শুরু হবে। আপাতত ভাঙন ঠেকাতেই জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে।

পিডিএসও/ইউসুফ

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
মাদারীপুর,শিবচর,আড়িয়াল খাঁ নদ,প্রচণ্ড ভাঙন,বসতবাড়ি বিলীন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close