সীমান্তে মিয়ানমারের অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন নিয়ে আতঙ্ক

প্রকাশ : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:৪৩ | আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:২২

কক্সবাজার প্রতিনিধি

বাংলাদেশ-মিয়ানমার নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে গত ৫ দিন ধরে মিয়ানমারের অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করেছে। সেখানে কাঁটাতারের বেড়ার পাশ দিয়ে অতিরিক্ত সেনা সদস্যরা আসা-যাওয়া করার কারণে সীমান্তে বসবাসকারী বাংলাদেশিদের মাঝে চরম আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু বাইশপাঁড়ি এলাকার বাসিন্দা আবদুর রহিম জানিয়েছেন, কাঁটাতারের বেড়া ঘেষে আমার জমি। এই জমিতে শাক-সবজিসহ নানান ধরনের ক্ষেত-খামার চাষাবাদ করে পরিবার নিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে মিয়ানমার সেনাদের ঘুরাফেরা নিয়ে পুরো পরিবার ভয়ের মধ্যে আছি। তারপরেও পেটের দায়ে ভয় এবং আতঙ্কের মাঝে কাজ করতে হচ্ছে।

তার মতো সীমান্তে বসবাসকারী আরও অনেকে জানিয়েছেন, সীমান্তে বেশি উত্তেজনা বিরাজ করলে ঘরের মধ্যে অবস্থান করি, নয়তো গ্রাম ছেড়ে নিরাপদ স্থানে গিয়ে আশ্রয় নিই।

জানা গেছে, গত ৫ দিন ধরে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের ওপারে হঠাৎ করে অতিরিক্ত সেনা ও সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিজিপি) মোতায়েন করেছে মিয়ানমার। এতে এপারে বসবাসকারী স্থানীয়দের মাঝে সৃষ্টি হয়েছে আতঙ্ক ও উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা।

বিশেষ করে নাইক্ষ্যংছড়ির তুমব্রু-বাইশফাঁড়ি সীমান্ত এলাকাজুড়ে মিয়ানমার স্থাপন করেছে বাঙ্কার ও নিরাপত্তার নামে অসংখ্য চৌকি। হঠাৎ তাদের এ ধরনের তৎপরতা নিয়ে স্থানীয়দের ভাবিয়ে তুলেছে।

কক্সবাজার ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ জানান, সীমান্ত এলাকাজুড়ে মিয়ানমারের অতিরিক্ত বিজিপির সদস্যদের অবস্থান সম্পর্কে অবগত রয়েছি। এ নিয়ে আতঙ্কের কিছু নেই, সব ধরনের পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিজিবি সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রয়েছে।

পিডিএসও/হেলাল