নবাবগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি

  ১৬ মে, ২০২৪

নবাবগঞ্জের ইছামতী নদী

নড়বড়ে সাঁকোয় পারাপার দাবি পাকা সেতুর

নবাবগঞ্জের তুইতাল-বকচর গ্রামে ইছামতীর নদীর ওপর নির্মিত ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকো দিয়ে পারাপার করছে শিক্ষার্থীরা -প্রতিদিনের সংবাদ

ঢাকার নবাবগঞ্জ ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকো দিয়ে পারাপার করছেন পথচারীরা। তুইতাল-বকচর গ্রামে ইছামতীর নদীর ওপর সাঁকোটির স্থানে একটি সেতু নির্মাণের দাবি স্থানীয় বাসিন্দাদের। দাবি পূরণ না হওয়ায় স্থানীয়রা নিজস্ব অর্থায়নে ওইখানে সাঁকো নির্মাণ করেছেন। ওইপথে পারাপারে স্কুলশিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষকে সাঁকো দিয়েই যাতায়াত করতে হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানায়, শিকারীপাড়া ইউনিয়নের শেষ প্রান্তের নারায়ণপুর, সুজাপুর, শেরপুরসহ পার্শ্ববর্তী নয়নশ্রী ইউনিয়নের নতুন ও পুরান তুইতাল, বকচর, আফজালনগর, শৈল্লা, তাশুল্লা, বাংলাবাজার, বিলপল্লী এবং বারুয়াখালী ইউনিয়নের কাউনিয়াকান্দি গ্রামের লোকজন এই পথ দিয়ে যাতায়াত করে থাকেন। এই পথে সাঁকো পার হয়ে তুইতাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বকচর উচ্চবিদ্যালয়, তুইতাল বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছাড়াও বাংলাবাজার, তুইতাল বাজার, মসজিদ, তুইতাল গির্জা, ব্যাংক ও বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের লোকজনকে ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। বর্ষায় সাকোঁটি ডুবে যাওয়ায় ভোগান্তি আরো বেড়ে যায়। স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীসহ প্রতিদিন হাজারো পথচারীকে এই সাঁকোর ওপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হয়।

বকচর এলাকার বাসিন্দা বাদশা মিয়া বলেন, নির্বাচন এলে জনপ্রতিনিধিরা শুধু আশ্বাসই দেন। পরে আর তাদের খবর থাকে না। তাশুল্যা গ্রামের সাধনা রানী বলেন, নির্বাচনের সময় সবাই কথা দেন, মনে হয় না বেঁচে থাকতে ওইখানে সেতু হকে দেখতে পারবো।

বকচর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আব্দুল কুদ্দুস বলেন, নড়বড়ে সাঁকোর ওপর দিয়ে পারাপার হতে গিয়ে মাঝেমধ্যে দুর্ঘটনার কবলে পড়ছে শিক্ষার্থীসহ পথচারীরা। বকচরের ব্যবসায়ী শেখ আলপিন বলেন, জন্মের পর থেকেই এমন দেখতাছি। হাট বাজারে যেতে আমাকে অনেক কস্ট করতে হয়। শুস্ক মৌসূমে ভাঙা সাঁকো দিয়ে আর বর্ষায় নৌকাই আমাদের ভরসা। এখানে পাঁকা সেতু নির্মিত হলেই এলাকাবাসীর জন্য যাতায়াতব্যবস্থাসহ ব্যবসা-বাণিজ্যের নতুন সুযোগের সৃষ্টি হবে।

বকচর তুইতাল উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মঞ্জু রানী মৃধা বলেন, তাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এলাকার শতশত শিক্ষার্থী লেখাপড়া করে। সাঁকোটি পার হতে শিক্ষার্থীদেরকে প্রতিদিন ১০ টাকা করে দিতে হয়।

নয়নশ্রী ইউপি চেয়ারম্যান পলাশ চৌধুরী জানান, এটা সত্য আমরা জনপ্রতিনিধিরা নির্বাচনের আগে তাদের বারবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম সেখানে সেতু হবে। কিন্তু বিভিন্ন কারণে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে পারি নাই। বিষয়টি সালমান এফ রহমান এমপি মহোদয়কে অবগত করেছি। আশা আছে দ্রুত সমস্যা সমাধান হবে।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
ঢাকার নবাবগঞ্জ,নরবড়ে বাঁশের সাঁকো
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close