জয়পুরহাট প্রতিনিধি

  ২১ এপ্রিল, ২০২৪

দুই যুগ ধরে বিনে পয়সায় পড়াচ্ছেন শিক্ষক ফরিদ 

ছবি: প্রতিদিনের সংবাদ

দুই যুগ ধরে শিক্ষার বিস্তার ঘটানোর ইচ্ছায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে পাঠদান কার্যক্রম ও দরিদ্র শিক্ষার্থীদের শিক্ষা উপকরনও কিনে দেন শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন আক্তার। তিনি জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার তেলিহার গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। ওই গ্রামেই বসবাস করেন তিনি।

জানা গেছে, ফরিদ উদ্দিন আক্তার দুই যুগ আগে সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন স্থানীয় একটি প্রাথমিকে। চাকরির শুরু থেকেই উপলব্ধি করেন শিক্ষার বিস্তার ঘটাবেন। স্কুলে অর্পিত দায়িত্ব পালন শেষে শুরু হয় নিজ স্কুল সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে পাঠদান কার্যক্রম। এখন পর্যন্ত লাখের বেশি শিক্ষার্থীকে বিনামূল্যে পাঠদান করিয়েছেন তিনি। শুধু তাই নয়, দরিদ্র শিক্ষার্থীদের খাতা-কলমসহ শিক্ষা উপকরনও কিনে দেন তিনি।

কালাই উপজেলায় তেলি হার গ্রামের ওয়াসিম হোসেন বলেন, আমার তিনটি সন্তান এই স্কুলে পড়ে। আমি একজন ভ্যান চালক, আমার সন্তানদের পড়াশোনা করাতে খুব কষ্ট হয়। আমার তিন সন্তানকে ফরিদ স্যার বিনামূল্যে প্রাইভেট পড়ায় এবং খোজ খবর রাখেন। এতে আমি অনেক আনন্দিত।

একই গ্রামের বাসিন্দা সুফিয়া বেগম বলেন, ফরিদ স্যারের আচরণ ব্যবহার সবচেয়ে ভালো লাগে। স্কুলে যে ছাত্রছাত্রী আছে তাদের লেখাপড়াও ভালো হচ্ছে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে বাবা-মার কাছে খোঁজখবর রাখেন।

ওই গ্রামের কয়েকজন অভিভাবকরা জানান, তার শিক্ষার্থীদের মধ্যে রয়েছেন চিকিৎসক, প্রকৌশলী, শিক্ষক আবার কেউবা জায়গা করে নিয়েছেন বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের উচ্চ পদে। তাই শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন আক্তারের কাছে নিজেদের সন্তানদের বিনামূল্যে প্রাইভেট বা টিউশনি করার সুযোগ পাওয়ায় বেশ নিশ্চিন্ত অভিভাবকরা জানান কৃতজ্ঞতা।

প্রধান শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন জানান, একদিন তিনিও টাকার অভাবে প্রাইভেট পড়তে পারেননি, লেখা পড়া করতে হয়েছে খুব কষ্টে। শিক্ষার বিস্তার ঘটাতে পারলে দেশ এগিয়ে যাবে। অবসরে যাওয়ার পর থেকে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত এ ভাবেই সকল শিশুদের বিনামূল্যে পাঠদান চালিয়ে যাবেন বলে আশা করেন তিনি।

কালাই উপজেলার উদয়পুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ওয়াজেদ আলী দাদা জানান, ছাত্র জীবনে নিজ সহপাঠীদের ও এলাকার বিভিন্ন শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে পড়িয়েছেন তিনি। কারো বই কেনা, ফরম ফিলআপ স্কুল কলেজের পোষাকের ব্যবস্থা ও গ্রামে ঘুরে ঘুরে ঝরে পড়া বাচ্চাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মুখী করেছেন বলেও বেশ সুনাম রয়েছে শিক্ষক ফরিদের।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জয়পুরহাট কালাই,শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন আক্তার,তেলিহার গ্রামের সরকারি প্রাথমিক
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close