বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি

  ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

কবুতরের সঙ্গে সখ্যতা পাখিপ্রেমিক আশরাফুলের

ছবি: প্রতিদিনের সংবাদ

আট বছর ধরে রোজ দুপুরে প্রায় দুই শতাধিক কবুতরকে খাবার খাওয়াচ্ছেন আশরাফুল ইসলাম (৫৫)। দিনাজপুরের বিরামপুর পৌর শহরের নতুন বাজারের কাঁচামালের আড়ৎদার তিনি।

জানা গেছে, আশরাফুল এর নিজের কাঁচামালের আড়ৎ এর সামনে ২০১৬ সালের এক দুপুরে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। দেখলেন একটি কবুতর খাবার খুঁজে বেড়াচ্ছে। এ সময় কবুতরটিকে তিনি খেতে দেন। পরদিন দেখেন একই সময় আরো তিনটি কবুতর জড়ো হয়। তিনি তাদেরও খেতে দেন তিনি। এরপর দিনদিন আড়ৎ এর সামনে বাড়তে থাকে কবুতরের সংখ্যা। প্রতিদিন দুপুর ১২টা হলেই কবুতরগুলি গিয়ে ভিড় করতে শুরু করে আড়ৎ এর সামনে। এভাবেই দিনের পর দিন কবুতরগুলোর সঙ্গে সখ্যতা গড়ে উঠেছে পাখিপ্রেমিক আশরাফুল ইসলামের।

সরেজমিনে দেখা গেছে, আশরাফুল রোজ অনেক ভালোবাসা নিয়ে কবুতর গুলোকে খাবার খাওয়ান। আর তা দেখতে তার ‘দয়াল ভান্ডার’ আড়ৎ এর সামনে এখন ভিড় করেন বাজার করতে আসা আশপাশ থেকে অনেক মানুষ।

আশরাফুল বলেন, আট বছর আগে একটি খাবার দেই। পরদিন খেয়াল করি একই সময় আরো তিনটি কবুতর জড়ো হয়েছে। দিন দিন এ কবুতরের সংখ্যা বেড়ে দুই শতাধিক দাঁড়িয়েছে। কবুতরগুলোকে প্রতিদিন প্রায় দুই কেজি গম খেতে দেন। খাবার খাওয়ান কাক ও বিড়ালকেও। এতে সব মিলে দিনে প্রায় ১০০ থেকে ১২০ টাকা এবং মাসে ৩ হাজার টাকার ওপরে খরচ হয়।

বাজার করতে আসা সাদিয়া ইয়াসমিন তুবা বলেন, আশ্চর্যের ব্যাপার হচ্ছে সাধারণত কবুতরগুলোকে অনেক শব্দ করলেও উড়ে যায় না। দোকানের সামনে তারা শান্তভাবে খাবার খেয়ে আবার উড়ে যায়।

বিরামপুর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা বিপুল কুমার বলেন, ব্যবসায়ী আশরাফুল ইসলাম নিঃস্বার্থভাবে পশুপাখিকে প্রতিদিন খাবার দেন। সেটি প্রকৃতির প্রতি তার অকৃত্রিম প্রেম। কবুতর তো সুখের পায়রা। কবুতর যেখানে ভালোবাসা পায়, সেখানে যায়। কবুতরগুলো তার কাছে ভালোবাসা পাচ্ছে।

পিডিএস/এস

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
কবুতর পালন,দিনাজপুরের বিরামপুর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close