আশরাফুল আলম সাজু, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম)

  ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২

রাজারহাটের দুঃখ ফুলখাঁর চাকলা মোড়

রাস্তা না পুকুর, বিভ্রান্তিতে পথচারীরা

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলা শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত ফুলখাঁর চাকলা মোড়ে জলাবদ্ধতা দেখলে অবাক হওয়া ছাড়া কোনো উপায় নেই। অপরিচিত কোনো পথচারী দূর থেকে রাস্তাটি দেখলে বোঝার উপায় নেই যে এটা রাস্তা না পুকুর। এই রাস্তাটি রাজারহাট হয়ে আনন্দবাজার ভায়া উলিপুর-চিলমারীকে সংযুক্ত করেছে। ভৌগলিক দিক দিয়ে এলাকার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ব্যস্ত এই রাস্তাটি চলাচলের জন্য ঝঁকিপূর্ণ প্রায় অযোগ্য হয়ে পড়েছে। অবস্থা এমন যেন চোখে পড়ে না কোনো জনপ্রতিনিধির।

এ অবস্থায় জীবনের ঝুঁকি নিয়েই চলছে বিভিন্ন ধরনের হালকা ও ভারী যানবাহন। ছোটখাটো দুর্ঘটনা ঘটছে প্রায়ই। যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন পথচারীরা। পাশেই সোনালী ব্যাংক, ট্রাফিক বক্স, রাজারহাট কুড়িগ্রাম ও রাজারহাট উলিপুর আঞ্চলিক মহাসড়ক থাকায় এই মোড় সব সময় অত্যন্ত গুরুত্ব বহন করে। সামান্য বৃষ্টিতেই পানি জমে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে। সময় মতো পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় রাস্তাটির মধ্যখানে পানি জমে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, ইতিপূর্বে এই অংশটি কয়েকবার সংস্কার করলেও তা বেশি দিন স্থায়ী হয় নাই। সরেজমিনে গিয়ে কথা হয় পথচারী মাহাবুর, শাহাজাহানসহ বেশ কয়েকজনের সঙ্গে। তারা বলেন, এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন শত শত মানুষ ও যানবাহন চলাচল করে, কয়েকবার সংস্কার করতে দেখেছি, তবে সেটা টেকসই হয়নি। সামান্য বৃষ্টিতেই আবার আগের অবস্থা হওয়ায় চলাচলে কষ্ট হচ্ছে।

এ বিষয়ে চাকিরপশার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম জানান, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে এই রাস্তাটির কাজ করার কোনো সুযোগ নেই। তবে উপজেলা প্রকৌশলীর সঙ্গে কথা হয়েছে। যত দ্রুত সম্ভব ফুলখাঁর চাকলা মোড় থেকে ব্যাপারী পাড়া জামে মসজিদ পর্যন্ত রাস্তাটির কাজ করা হবে।

উপজেলা প্রকৌশলী মো. সোহেল রানা জানান, রাস্তার এই অংশটি অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ, সেটা বিবেচনায় নিয়ে ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ আরসি আইসি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। দ্রুত সমস্ত আনুসাঙ্গিকতা শেষ করে এখানে অত্যন্ত উন্নতমানের কাজ করা হবে আশা করি।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
রাজারহাট,ফুলখাঁর চাকলা মোড়
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close