নিজস্ব প্রতিবেদক

  ২৯ নভেম্বর, ২০২২

এক টেবিলে নাশতা করলেন রওশন-কাদের, স্বস্তিতে নেতাকর্মীরা

ফাইল ছবি

বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদের সঙ্গে দেখা করেছেন দলটির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের। মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে দুজন এক টেবিলে বসে নাশতা করেন। এ সময় সঙ্গে ছিলেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান আবু হোসেন (বাবলা)। তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রওশন এরশাদ ওয়েস্টিনেই থাকছেন বলে জানান সংসদ সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন। এ সময় দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য শফিকুল ইসলাম সেন্টু, রওশন এরশাদের ছেলে সাদ এরশাদ ও তার স্ত্রী উপস্থিত ছিলেন।

থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে দীর্ঘদিন চিকিৎসা শেষে গত রবিবার দেশে ফেরেন সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। তিনি দেশে ফিরে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, জি এম কাদেরসহ দলের সবার সঙ্গে আলোচনা করে ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটানো হবে।

সূত্র জানায়, জাতীয় পার্টি নিয়ে সৃষ্ট সংকট সমাধানে আলোচনা করেন তারা। আন্তরিক পরিবেশে দীর্ঘদিনের দূরত্ব ঘুচিয়ে জাতীয় পার্টিকে আরো শক্তিশালী করতে একমত হয়েছেন তারা। আন্তরিক পরিবেশে আলোচনা ফলপ্রসূ হয়েছে বলেও জানা গেছে।

চাচাকে স্বাগত জানান এরশাদপুত্র রাহগির আল মাহে সাদ এরশাদ ও পুত্রবধূ মহিমা সাদ। বিরোধীদলীয় নেতার সঙ্গে দেখা করে সালাম ও কুশল বিনিময় করেন জি এম কাদের। তারপর সবাইকে সরিয়ে দিয়ে ১০-১৫ মিনিট কথা বলেন।

এ বিষয়ে সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি বলেন, পার্টির চেয়ারম্যানসহ আমরা পল্লীমাতা বেগম রওশন এরশাদের দোয়া নিতে গিয়েছিলাম। তিনি আমাদের সন্তানের মতো ভালোবাসেন। তিনি আমাদের খোঁজখবর নিয়েছেন, দোয়া করেছেন। অভিভাবক হিসেবে জাতীয় পার্টিকে ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী করতে দিকনির্দেশনা দিয়েছেন।

এর আগের দিন রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বর্তমান মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাকে জাতীয় পার্টির মেয়রপ্রার্থী ঘোষণা করেন রওশন এরশাদ। সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে আনুষ্ঠানিকভাবে তার নাম ঘোষণা করেন তিনি। এতে আভাস মিলে বেগম রওশন এরশাদের সঙ্গে দলটির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের দূরত্ব কমার। কারণ জি এম কাদেরের পক্ষে দলের মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু আগেই মোস্তফার নাম মেয়রপ্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জাতীয় পার্টির একজন প্রেসিডিয়াম সদস্য জানান, আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় নিতে রওশন এরশাদ ও পার্টির চেয়ারম্যানের মধ্যে নিবিড় ঐক্যের বিকল্প নেই। দুজনের ভুল বুঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে এরশাদ পরিবারকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী জাতীয় পার্টি গড়তে নেপথ্যে ভূমিকা রাখছেন দলটির প্রভাবশালী কো-চেয়ারমান সাবেক মন্ত্রী এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, শফিকুল ইসলাম সেন্টুসহ কিছু সিনিয়র নেতা। এরই ধারাবাহিকতায় বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদের সঙ্গে জি এম কাদেরের মধ্যে এই বৈঠক হয়েছে।

জাপায় জি এম কাদেরের দায়িত্ব পালনে বাধা নেই : এদিকে গতকাল গঠনতন্ত্র অনুযায়ী জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের (জি এম কাদের) দায়িত্ব পালনের ওপর নিষেধাজ্ঞাদেশ স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি এ বিষয়ে রুলও জারি করেছেন আদালত। এর ফলে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে জি এম কাদেরের দায়িত্ব পালনে কোনো বাধা রইল না বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

এক আবেদনের শুনানি নিয়ে মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) বিচারপতি শেখ আবদুল আউয়ালের নেতৃত্বাধীন একক হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম। এর আগে গত ৪ অক্টোবর জাতীয় পার্টির বহিষ্কৃত নেতা ও দলটির সাবেক এমপি জিয়াউল হক মৃধা চেয়ারম্যান হিসেবে গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে মামলা করেন। বাদীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ৩১ অক্টোবর ঢাকার প্রথম যুগ্ম জেলা জজ আদালত জি এম কাদেরের দলীয় যাবতীয় কার্যক্রমের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আদেশ দেন।

পরে জি এম কাদেরের ওপর গঠনতন্ত্র অনুযায়ী দলের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞার আদেশ প্রত্যাহার চেয়ে আবেদন করা হয়। গত ২৪ নভেম্বর ওই আবেদনের ওপর শুনানির জন্য জেলা জজ আদালতে মিস আপিল দায়ের করা হয়। কিন্তু সে আবেদন নামঞ্জুর করেন জেলা জজ আদালত। পরে ওই আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিভিশন আবেদন করেন জি এম কাদের।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
রওশন,কাদের,জাপা
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close