reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ০২ ডিসেম্বর, ২০২৩

আরও এগিয়ে আসছে বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি

ছবি : সংগৃহীত

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্নচাপটি আরও পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আরও পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর ও ঘণীভূত হতে পারে। এটি শনিবার (২ ডিসেম্বর) মধ্যরাত থেকে রবিবার দুপুরের মধ্যে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। তবে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে আঘাত হানার আশঙ্কা কম

আবহাওয়াবিদ কাজী জেবুনেচ্ছা গণমাধ্যমকে বলেন, এখন পর্যন্ত মডেল পর্যবেক্ষণ করে দেখা যাচ্ছে গভীর নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবার আশঙ্কা অনেক বেশি। তবে ঘূর্ণিঝড়ে রূপান্তর হলেও বাংলাদেশে না আসার সম্ভাবনা প্রায় ৮০ ভাগ।

শনিবার আবহাওয়াবিদ ড. মুহাম্মদ আবুল কালাম মল্লিক স্বাক্ষরিত আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে (ক্রমিক নং ৮) বলা হয়, দক্ষিণপশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি আরো পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আজ (শনিবার) সন্ধ্যা ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১৫৬৫ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১৫১০ কি. মি. দক্ষিণ পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ১৪৫০ কি. মি. দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ১৪৪৫ কি. মি. দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরও পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর ও ঘণীভূত হতে পারে।

এতে আরও বলা হয়, গভীর নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৮ কি. মি. এর মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৫০ কি. মি., যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৬০ কি. মি. পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। গভীর নিম্নচাপ কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর উত্তাল রয়েছে।

এ ছাড়াও চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ১ (এক) নম্বর (পুনঃ) ১ (এক) নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

পিডিএস/এএমকে

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
গভীর নিম্নচাপ,বঙ্গোপসাগর,আবহাওয়া
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close