নিজস্ব প্রতিবেদক

  ১৯ মার্চ, ২০২৩

পানি ব্যবস্থাপনায় সাফল্যের স্বীকৃতি এক্সিলেন্স পুরস্কার : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী 

ঢাকা ওয়াসার অংশী সংস্থা ড্রিংকওয়েল বাংলাদেশ পানি বিক্রয় সেবার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের এক্সিলেন্স পুরস্কার পাওয়ায় ও এই পুরস্কার হস্তান্তর উপলক্ষে রবিবার রাজধানীতে ওয়াসা ভবনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। ছবি : প্রতিদিনের সংবাদ

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, পানির অপর নাম জীবন হলেও মানুষ একসময় পানির জন্য হাহাকার করত। বর্তমান সরকার ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে বিভিন্ন নাগরিক সুবিধা বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়ার ফলে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ অনেকাংশে হ্রাস পেয়েছে।

তিনি রবিবার (১৯ মার্চ) রাজধানীতে ওয়াসা ভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। ঢাকা ওয়াসার অংশী সংস্থা ড্রিংকওয়েল বাংলাদেশ এটিএম কার্ডের মাধ্যমে বুথ থেকে স্বল্পমূল্যে সুপেয় পানি বিক্রয় সেবা প্রদানের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের করপোরেট এক্সিলেন্স পুরস্কার ২০২২ পেয়েছে। এই পুরস্কার প্রাপ্তি ও হস্তান্তর উপলক্ষে ওয়াসা ভবনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাস এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব মুহম্মদ ইবরাহিম। এতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা ওয়াসার এমডি প্রকৌশলী তাকসিম এ খান।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান সোনার বাংলা গড়ার সুযোগ না পেলেও তার সুযোগ্য কন্যা সে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন। ১৯৯৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতা গ্রহণের পর প্রথমে খাদ্য স্বয়ংসম্পূর্ণ হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেন। এর ফলে ছোট একটি দেশ হওয়া সত্ত্বেও বাংলাদেশ তার বিশাল জনসংখ্যার সবার ক্ষুধা মেটাতে পারছে।

তিনি আরো বলেন, ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত ও স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থায় বৈপ্লবিক পরিবর্তন করেন। পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল বা কর্ণফুলি টানেল একসময় অকল্পনীয় ছিল কিন্তু তা এখন বাস্তব।

তথ্য ও প্রযুক্তিখাতে সরকারের সাফল্য তুলে ধরে তিনি বলেন, এখন গ্রাম ও পাহাড়ের মানুষও বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট সুবিধার আওতায় এসেছে। এর ফলে সবক্ষেত্রেই ব্যাপক উন্নতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

মন্ত্রী বলেন, গার্হস্থ্য, কৃষি বা শিল্পখাতে পানির দরকার থাকলেও খাবার সুপেয় পানির অপরিসীম গুরুত্ব রয়েছে। ঢাকা ওয়াসার অংশী সংস্থা ড্রিংকওয়েল বাংলাদেশ সুপেয় পানি সরবরাহ সেবার জন্য যুরক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের করপোরেট এক্সিলেন্স পুরস্কার পেয়েছে। এই প্রাপ্তি আমাদের জন্য গৌরবের। কারণ, ডিজিটাল বাংলাদেশে মানুষ এখন কার্ড দিয়ে এটিএম বুথ থেকে নামমাত্র মূল্যে পানি ক্রয় করতে পারছে।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার বাংলাদেশে এ রকম অনেক অসম্ভব বিষয় আজ বাস্তবতায় পরিণত হয়েছে। ফলে মানুষ আগের থেকে অনেক বেশি সেবা পাচ্ছে এবং তাদের জীবনমান উন্নত হয়েছে।

তিনি বলেন, ড্রিংকওয়েলের মত বেসরকারি উদ্যোগকে ওয়াসা সহায়তা করার ফলে মানুষের স্বাস্থ্যসম্মত খাবার পানি প্রাপ্তি সহজ হয়েছে।

পিডিএসও/এমএ/কেএমএস

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
পানি ব্যবস্থাপনা,এক্সিলেন্স পুরস্কার,স্থানীয় সরকারমন্ত্রী
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close