reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ১৪ এপ্রিল, ২০২৪

উপযুক্ত সময়ে প্রতিশোধ নেওয়ার হুমকি ইসরায়েলের

স্থানীয় সময় শনিবার (১৩ এপ্রিল) রাতে ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে তিনশরও বেশি ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে ইরান। ইসরায়ের জানিয়েছে এই হামলায় তাদের কোনই ক্ষতি হয়নি। অন্যদিকে ইরান সতর্ক করে বলেছে দেশটি যদি হামলার কোন জবাব দেয়ার চেষ্টা করে তাহলে পরবর্তীতে আরও বড় পদক্ষেপ নেবে তারা।

ইরানের সামরিক বাহিনীর চিফ অব স্টাফ মেজর জেনারেল মোহাম্মদ বাঘেরি রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে বলেছেন ইসরায়েল পাল্টা কিছু করার চেষ্টা করলে রাতভর বোমাবর্ষণের চেয়েও বড় কিছু হবে ইরানের প্রতিক্রিয়া।

এখন পর্যন্ত ইরানের হামলার জবাবে পাল্টা কোনো হামলা চালায়নি ইসরায়েল। তবে ইসরায়েলের যুদ্ধকালীন মন্ত্রীসভার দপ্তরবিহীন মন্ত্রী বেনি গানজ বলেছেন, যখন উপযুক্ত সময় আসবে তখন ইরানের ওপর প্রতিশোধ নেবেন তারা।

বেনি গানজ বলেছেন, “আমরা একটি আঞ্চলিক জোট গঠন করব এবং যখন আমাদের জন্য উপযুক্ত সময় আসবে তখন আমরা ইরানের ওপর প্রতিশোধ নেব।”

ইরানের এই অভূতপূর্ব হামলার পর আজ রোববার বৈঠকে বসেছে ইসরায়েলের যুদ্ধকালীন মন্ত্রীসভা।

এদিকে ইসরায়েল দাবি করেছে, ইরানের ছোড়া ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্রের বেশিরভাগই ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে এবং এসব অস্ত্র তাদের বড় কোনো ক্ষতি করতে পারেনি।

তবে ইরান এটিকে একটি সফল হামলা হিসেবে অভিহিত করেছে এবং তারা জানিয়েছে, তাদের অভিযান শেষ হয়েছে।

ইরান আরও দাবি করেছে, সিরিয়ায় কনস্যুলেটে হামলার প্রতিশোধ নিতে ইসরায়েলের যেসব সামরিক অবকাঠামোকে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করা হয়েছিল তার সবগুলোতেই ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হেনেছে।

ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনীর মুখপাত্র ড্যানিয়েল হ্যাগারি বলেছেন, ইরান থেকে যেসব ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হয়েছে সেগুলোর ৯৯ শতাংশ ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে।

দখলদার ইসরায়েলে অভিযান শেষ হওয়ার পর পর ইরান হুমকি দিয়েছে, যদি তাদের ভূখণ্ড এবং অন্যান্য দেশে থাকা অবকাঠামো লক্ষ্য করে ইসরায়েল কোনো হামলা চালায় তাহলে পরবর্তী হামলা আরও বেশি কঠোর হবে।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close