আশিক সরকার, কামারখন্দ (সিরাজগঞ্জ)

  ২৪ জানুয়ারি, ২০২৩

জামতৈল রেলস্টেশনে যাত্রী দুর্ভোগ চরমে

জামতৈল রেলওয়ে স্টেশনের একমাত্র বিশ্রামাগার ব্যবহারের অনুপযোগী, তালাবদ্ধ প্রায় একযুগ

সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার জামতৈল রেলওয়ে স্টেশনের একমাত্র বিশ্রামাগারের ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। তাই অধিকাংশ সময় তালাবদ্ধ থাকে দ্বিতীয় শ্রেণির এ বিশ্রামাগার। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রেলওয়ের যাত্রীদের।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বিশ্রামাগার তালাবদ্ধ থাকায় টিকেট কাটার পর স্টেশনের আশপাশে ট্রেনের অপেক্ষা করছেন যাত্রীরা। দীর্ঘক্ষণ ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করার পর অনেকে খোঁজ করেন গণশৌচাগারের। কিন্তু জামতৈল স্টেশনে একমাত্র বিশ্রামাগার তালাবদ্ধ থাকা ও আশপাশে কোন গণশৌচাগার না থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রীরা।

জামতৈল রেলওয়ে স্টেশনে ঢাকাগামী সিল্কসিটি এক্সপেস ট্রেনের জন্য পরিবার নিয়ে অপেক্ষা করছিলেন ব্যাংক কর্মকর্তা সামসুল হক। তার সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, অনেকক্ষণ হলো ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করছি। বিশ্রামাগার না থাকায় স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে বাহিরেই দাঁড়িয়ে আছি। এতে আমাদের খুব কষ্ট হচ্ছে।

জয়পুরহাটগামী যাত্রী সুমাইয়া ইসলাম জানান, জয়পুরহাটে যাওয়ার জন্য টিকেট কেটে স্টেশনে ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করছি। কিন্তু গণশৌচাগার ব্যবহারের প্রয়োজন হলে অনেক খুঁজে একটি গণশৌচাগারের দেখা পাইনি। জামতৈল স্টেশনে একটি বিশ্রামাগার আছে সেটিও ব্যবহারের অনুপযোগী। এতে আমাদের জামতৈল স্টেশনে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

জামতৈল রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশন মাস্টার আবু হান্নান জানান, ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে জামতৈল স্টেশনের ব্যবহার অনুপযোগী বিশ্রামাগারটি ব্যবহার উপযোগী করতে রেলওয়ে বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে। কিন্তু দুই বছর অতিক্রম হলেও বিশ্রামাগারটি সংস্কারে উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। এতে যাত্রীদের দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে।

পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন জানান, জামতৈল রেলওয়ে স্টেশনের বিশ্রামাগার ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ার বিষয়টি আমরা ইতিমধ্যে অবগত হয়েছি। দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিশ্রামাগারটি ব্যবহারের উপযোগী করা হবে।

পিডিএস/মীর

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জামতৈল রেলস্টেশন,দুর্ভোগ
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close