reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ০৯ আগস্ট, ২০২২

সন্ধ্যা নদীতে লঞ্চের সঙ্গে বাল্কহেডের সংঘর্ষ

ছবি : সংগৃহীত

বরিশালের উজিরপুর উপজেলায় ঢাকাগামী লঞ্চ মর্নিং সান-৯-এর সঙ্গে বালুভর্তি বাল্কহেডের সংঘর্ষ হয়েছে। সোমবার (৮ আগস্ট) দিবাগত রাতে উপজেলার সন্ধ্যা নদীতে এ সংঘর্ষ হয়।

বিষয়টি জানিয়েছেন উজিরপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন অফিসার মো. রাজ্জাক মোল্লা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিকালে পিরোজপুরের হুলারহাট লঞ্চঘাট থেকে মর্নিং সান ৯ লঞ্চটি ছেড়ে গেছে। সন্ধ্যার পর সন্ধ্যা নদীতে বালুভর্তি বাল্কহেডের সঙ্গে লঞ্চটির সংঘর্ষ হয়। এতে লঞ্চের প্লেনশিটের অংশ ফেটে গিয়ে ভেতরে পানি ঢুকতে শুরু করলে লঞ্চটি ডুবতে শুরু করে। তবে চালক লঞ্চটিকে দ্রুত সময়ে পাড়ে নিয়ে আসার কারণে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। যাত্রীদের নিরাপদে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

মর্নিং সান ৯-এর সুপারভাইজার হান্নান ফকির জানান, পিরোজপুর থেকে ঠিকভাবেই লঞ্চটিকে ছেড়ে দেয়া হয়। সেটি উজিরপুরে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হলে আমরা খবর পাই। তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল থেকে যাত্রীদের নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে। সবাইকে যার যার গন্তব্যে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। এখন লঞ্চে থাকা কারোর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হচ্ছে না। ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে।

লঞ্চের যাত্রী আশিকুল ইসলাম বলেন, ‘যেভাবে ধাক্কা লাগছে তাতে তো ভাবছিলাম আমরা শেষ। যাত্রীদের চিৎকারে সবাই আতঙ্কিত হয়ে গিয়েছিল। একটু পর দেখি লঞ্চ পাড়ে ভিড়ছে। বড় কথা হচ্ছে সংঘর্ষের মুখ থেকে ডুবতে ডুবতে বেঁচে গেছি। সবাই নিরাপদে উঠে বাড়ি ফিরতে পারছে, সেটাই শুকরিয়া।’

উজিরপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন অফিসার মো. রাজ্জাক মোল্লা বলেন, ‘আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছাই। যাত্রীদের মধ্যে কোনো হতাহতের ঘটনা নেই। যাত্রীদের সবাইকে নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে।’

উজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মমিন উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। বাল্কহেড চালক ও তার সহকারী পলাতক রয়েছে। কোনো হতাহতের ঘটনা নেই।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
সন্ধ্যা নদী,লঞ্চ,বাল্কহেড,সংঘর্ষ
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close