দিলরুবা খাতুন, মেহেরপুর

  ৩১ জুলাই, ২০২২

পোষ মেনেছে ‘কালো ডানা চিল’

ছবি : প্রতিদিনের সংবাদ

মেহেরপুর শহরের ফুলবাগান পাড়ার যুবক দবির উদ্দিন পোষ মানিয়েছে ‘কালো ডানা চিল’ পাখিকে। তিনি চিলটিকে কুড়িয়ে পেয়েছিলেন একটি বিলপাড়ে এক মহিরুহর নিচে। পরম মমতায় নেন বাড়িতে। তিনমাস আগে কুড়িয়ে পাওয়া চিলটি তখন উড়তে পারতো না। নিজহাতে ছোট ছোট মাছ, গোসতোর টুকরো, গম ভুট্টো ইত্যাদি খাইয়ে বড় করেন। এখন উড়তে শিখেছে। দবিরের সাথে সাথে চলাচল করে। তার হাতে মাথায় বসে থাকে চিলটি।

শনিবার (৩০ জুলাই) দবির উদ্দীনকে দেখা যায় হাতে কালো ডানা চিল নিয়ে ঘুরতে। দবিরের বয়ানে- গত এপ্রিল মাসে কুঠিপাড়া বিলপাড়ে এক বটগাছের নিচে পাখিটি পড়ে ছিলো। তিনি কুড়িয়ে এনে অনেক কস্টে এতদিন রেখেছেন। এখন পাখিটি পোষ মেনেছে। অন্যান্য পাখির মতো রবিশষ্যসহ মাছ মাংস খায়। ছোট ছোট পোকা মাকড় শিকার করে। তার ভয়ে বাড়িতে ছোট ছোট পাখিরা আসেনা। প্রথমদিকে বাড়ির মুরগি ভয় করে সরে যেত। এখন মুরগিগুলোরও ভয় কেটেছে। কেউ পাখিটিকে ধরলে পায়ের নোখ দিয়ে খামচে ধরে। ঠোকা মেরে কামড়ে ধরে। তবে তাকে সে চেনে। নিজেই উড়ে এসে তার মাথায়, ঘাড়ে বসে। ক্ষিদে পেলে বাড়ির আশ পাশে ঝোপ ঝাড়ে খাবারের সন্ধ্যানে চলে যায়। ফিরেও আসে। তাই মায়া জন্মেছে পাখিটার প্রতি।

কুষ্টিয়া জেলা বার্ড ক্লাবের সভাপতি সদানন্দ মন্ডল জানান কালো ডানা চিল এসিপিট্রিডে পরিবারভ‚ক্ত চিল প্রজাতির ছোট্ট শিকারী পাখি। লম্বা বাজপাখীর মতো শিকারের প্রাক্কালে পাখার বিস্তরণের পাশাপাশি লেজেরও বিস্তৃতি ঘটে থাকে। এদের চক্ষুর অবস্থান এবং কোমলাকৃতি পালকগুলোর চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের সাথে পেঁচার বেশ মিল আছে। অবস্থানভেদে কালো ডানা চিল বছরের বিভিন্ন সময়ে বাসা বাঁধে, ডিম পাড়ে।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
পোষ মেনেছে,কালো ডানা চিল,মেহেরপুর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close