শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি

  ২৩ মে, ২০২২

হুমকির মুখে শাহজাদপুরের রাউতারা রিং বাঁধ 

ছবি : প্রতিদিনের সংবাদ।

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার বাঘাবাড়ি নিমাইচড়া রিং বাঁধ হুমকির মুখে। প্রবল পানি বৃদ্ধির ফলে যে কোন সময় বাঁধ ভাঙ্গার আশংকা রয়েছে। বাঁধ ভেঙ্গে গেলে ৩ টি জেলার হাজার হাজার হেক্টর ধান তলিয়ে যাবে এ কারণে বাঁধে অতিরিক্ত পাহারা বসানো হয়েছে। প্রতি বছর পানি উন্নয়ন বোর্ড এই বাঁধে কোটি কোটি টাকা ব্যয় করে। সেই সাথে চলে পুকুরচুরি।

জানা গেছে, শাহজাদপুর থেকে ৫ কিলোমিটার দুরে বাঘাবাড়ি নিমাইচড়া রিং বাঁধ অবাস্থিত। প্রায় ১২’শ মিটার লম্বা এই বাঁধে ২ কোটি ৩৪ লাখ টাকা ব্যয় করা হয়। নির্মিত এই রিং বাঁধে বরাবরই রয়েছে নানা অনিয়ম। বাঁধে যে পরিমাণ মাটি ও বালি ফালানোর কথা তা বাঁধে ফালানো হয়নি।

স্থানীয় গ্রামবাসি জানায়, প্রতি বছরই এখানে কোটি কোটি টাকা ব্যায়ে এখানে বাঁধ নির্মাণ করা হয়। প্রভাবশালী মহল জড়িত থাকায় বাঁধ নির্মাাণে চলে নানা অনিয়ম। পানি উন্নয়ন সব কিছু জেনেই প্রায় ২০ বছর ধরে এই বাঁধ নির্মাণে সরকারি টাকা লুটপাট করছে। অনিয়ম যেন নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। রিং বাঁধ নির্মাণে যে পরিমাণ টাকা সরকারের ব্যয় হয়েছে যদি সদিচ্ছা থাকত তাহলে এখানে দিনে একটি স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করা যেত।

সিরাজগঞ্জ জেলার পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ইমতিয়াজ আহম্মেদ সোমবার (২৩ মে) টেলিফোনে জানান, বাঁধ নির্মাণে কোন অনিয়ম করা হয়নি। বাঁধ সম্পূর্ণ ঠিক আছে। কোন সমস্যা হবেনা কৃষকদের ধান কাটতে।

তিনি আরও বলেন, আমরা স্থায়ী বাঁধ নির্মাণের জন্য মন্ত্রালয়ে কাগজ পাঠানো হয়েছে। যেহেতু রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয এখানে স্থাপন হবে তাই বাঘাবাড়ির পাশে নিমাইচড়া রিং বাঁধ হবে একটি স্থায়ী রিং বাঁধ। এদিকে পাবনা, নাটোর সিরাজগঞ্জসহ চলনবিল এলাকার ৬২ হাজার ৫’শ হেক্টর জমিতে ধান চাষ করা হয়। পানি বাড়ার ফলে বাঁধ যে কোন সময় ভেঙ্গে যেতে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে। আতংকে রয়েছে এসব এলাকার কৃষক। এ জন্য গ্রামবাসি রাত জেগে পাহারা দিচ্ছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার আব্দুস ছালাম জানান, রিং বাঁধ এখনোও ভালো আছে এলাকার কৃষকেরা ধান কাটতে শুরু করছে।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
শাহজাদপুর,হুমকির মুখে,রাউতারা রিং বাঁধ
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close