মাধবদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি

  ২২ মে, ২০২২

মাধবদীতে নয়ন হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

ছবি : প্রতিদিনের সংবাদ।

নরসিংদীর মাধবদীতে ব্যাবসায়ী নয়ন মিয়ার হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

রবিবার (২৩ মে) বেলা ১১টায় নরসিংদী সদর উপজেলার মাধবদী পাঁচদোনা বাজার এলাকায় কয়েক শতাধিক নারী ও পুরুষ মিলে এই মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচি পালন করে। মানববন্ধনে নিহতের বড় ভাই রতন মিয়া, ছোট ভাই হেলাল মিয়া, নিহতের স্ত্রী শাহানাজ বেগম ও দুই ছেলে সাদিকুর রহমান ও আজিজুর রহমানসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি বক্তব্য রাখেন।

এসময় বক্তারা নয়ন হত্যার ৫ দিন গত হলেও নিহত নয়নের খুনীদেরকে এখনো গ্রেপ্তার না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এসময় বক্তারা বলেন-মেহেরপাড়া এলাকার মুর্তিমান আতঙ্ক, সন্ত্রাসীদের গডফাদার, মাদক কারবারি, চাঁদাবাজ ও পুলিশের তালিকাভুক্ত একাধিক মামলার আসামি ১নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আতাউর রহমান ভূঁইয়া ও ৭নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য দানিছুর রহমান দানার প্রত্যক্ষ মদদে একাধিক সন্ত্রাসী বাহিনী দীর্ঘদিন ধরে মেহেরপাড়া ও এর আশপাশের এলাকায় ছিনতাই, চাঁদাবাজি, মাদক বেচাকেনা, অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়সহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের অত্যাচারে এলাকাবাসী ও বিভিন্ন ব্যাবসায়ীমহল অতিষ্ট হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে মাধবদী থানায় একাধিক অভিযোগ করেও এলাকাবাসী এর কোন প্রতিকার পায়নি। উল্টো তাদের চক্ষুশূল হয়ে কয়েক দফা হামলার শিকার হয়েছে।

এ ব্যাপারে নিহত নয়ন মিয়ার ছোট ভাই হেলাল মিয়া ১৩ জন আসামির নাম উল্লেখ পূর্বক মাধবদী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। তারা হলো শান্ত (২২), দানিসুর রহমান দানা (৫৫), আতাউর রহমান ভূঁইয়া (৩৫), মো. শরিফ মিয়া (৩২), মোহাম্মদ বাশেদ মিয়া (৩২), খোরশেদ আলম (৩৮), বদিউজ্জামান বধু (২২), আসাদুজ্জামান (২০), আনোয়ার হোসেন (৪৫), মুসা মিয়া (৪০), রবিউল (৩৪), মাহফুজ হাজার (১৯) ও সোহান (২৫)।

নয়ন হত্যাকান্ডের ৫ দিন গত হলেও পুলিশ এখনো পর্যন্ত কোন আসামি গ্রেপ্তার করতে পারেনি বিধায় নয়ন হত্যার বিচার নিয়ে নয়নের পরিবার ও জনমনে সংশয় বিরাজ করছে। এমতাবস্থায় নয়ন হত্যার প্রধান আসামি শান্ত ও তার মদদ দাতাদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানান বক্তারা।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
মাধবদী,নয়ন হত্যা,মানববন্ধন,বিচার
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close