শেরপুর প্রতিনিধি

  ২৭ নভেম্বর, ২০২১

শেরপুরে চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার ১নং কাংশা ইউপির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. জহুরু হকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তিনি।

শনিবার (২৭ নভেম্বর) সকালে কাংশা ইউনিয়নের গুরুচরণ দুধনই বাজার ঈদগাহ মাঠে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. জহুরুল হক।

তিনি বলেন, গত ২৫ নভেম্বর দেশের কয়েকটি গণমাধ্যমে আমার বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদগুলোতে আমার বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত তহবিলের ১০টাকা কেজি দরের চাল তছরুপ, তৎকালীন ইউপি সচিব সৈয়দ জামানকে প্রাণনাশের হুমকি, গ্রামপুলিশ সাদা মিয়াকে পিটিয়ে পঙ্গু করাসহ বিভিন্ন অনিয়মের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। আমার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ মিথ্যা বানোয়াট, ষড়যন্ত্র ও উদ্দেশ্যে প্রণোদিত। তাই আমি এ ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, আমি অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য। ১৯৮৪ সাল হইতে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত আমি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে চাকরি করেছি। চাকরি শেষে অবসরে আসার পর থেকেই আমি আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পরি। পরে আমি কাংশা ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পাই। এরপর ২০১৬ সালে ইউপি নির্বাচনে আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা মনোনয়ন পেয়ে তৎকালীন সময়ে বিপুল ভোটে জয়লাভ করি। এরপর থেকেই একটি মহল আমার বিরুদ্ধে অপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে।

জহুরুল হকের বাবা আবুল হোসাইন ১৯৮৬ থেকে ১৯৮৯ সাল আমৃত্যু এই ইউনিয়নের বিএনপির সভাপতি ছিলেন কি না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার বাবা কখনই বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন না। তিনি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেন, পারলে কেউ প্রমাণ করে দেখাক আমার বাবা কাংশা ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ছিলেন। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমি যেন নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন না পাই, তার জন্য একটি মহল ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে। এসব কিছু ওই ষড়যন্ত্রের অংশমাত্র।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সমাজসেবক আলহাজ্ব মো. ছমির উদ্দিন সরকার, আব্দুল মুন্নাফসহ স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
চেয়ারম্যান,সংবাদ সম্মেলন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close