বেনাপোল প্রতিনিধি

  ১৪ অক্টোবর, ২০২১

মানবতার নতুন দৃষ্টান্ত গড়ছে ‘হৃদয়ের বন্ধন’

ছবি : প্রতিদিনের সংবাদ

করোনাকালীন সময়ে তৈরি অনলাইন ভিত্তিক সামাজিক সংগঠন ‘হৃদয়ের বন্ধন ব্লাড ব্যাংক’বেশ সাড়া ফেলেছে। এটি অসহায় রোগীদেরকে বিনামূল্যে রক্তদানের মাধ্যমে যশোরের শার্শার বাগআঁচড়া অঞ্চলের মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে।

যশোরের শার্শা, ঝিকরগাছা ও সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার সংযোগস্থল বাগআঁচড়া। এই বাগআঁচড়া অঞ্চলের স্কুল-কলেজে পড়াশুনা করে এমন কয়েক জন ছাত্র ঐক্যবদ্ধ হয়ে ‘রক্তের প্রয়োজন হয় জীবনের তরে, রক্তদাতা তৈরী হোক প্রতি ঘরে ঘরে’ এই শ্লোগানে ২০২০ সালের ৭ জুন প্রতিষ্ঠা করেন ‘হৃদয়ের বন্ধন ব্লাড ব্যাংক’ নামের অনলাইন ভিত্তিক এই সামাজিক সংগঠনটি। উদ্দেশ্য ছিল সাধারণ মানুষের কল্যাণে কাজ করা, তাদের সাহায্যার্থে এগিয়ে আসা।

বাগআঁচড়ায় অন্তত ১০টি বেসরকারি হাসপাতাল আছে। যেখানে কোনও ব্লাড ব্যাংক নেই। রক্তের প্রয়োজনে ছুটতে হয় ৩৫ কিলোমিটার দুরের জেলা শহর যশোর কিংবা সাতক্ষীরায়। রক্ত সংরক্ষণের কোনও ব্যবস্থা না থাকায় তাৎক্ষণিক ‘রক্তের প্রয়োজন’ এরাই মিটিয়ে থাকে।

সংগঠনটির সভাপতি মিছবাউল হক বলেন, যেদেশে ২৫০মিলি পানি ১৫ টাকা দিয়ে কিনে খেতে হয়, সেখানে ৪৫০ মিলি রক্ত বিনামূল্যে মানুষকে দিয়ে জীবন বাঁচাতে পারছি, এর থেকে বড় সফলতা আর হতে পারে না।

আমরা মানুষকে উদ্বুদ্ধ করে ঘরে ঘরে রক্তদাতা তৈরির কাজটি করছি। ১৫ জন সদস্য নিয়ে সংগঠনটি দাঁড় করলেও আজ বছর যেতে না যেতেই রক্তদাতার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩০০ জনে।

ঝিকরগাছা উপজেলার কুলবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল আজিজ (৫০) এই সংগঠনের হয়ে সবচেয়ে বেশি বার রক্ত দিয়েছেন।

আব্দুল আজিজ বলেন, মুমূর্ষু রোগীর রক্ত দেওয়া আমার নেশায় পরিণত হয়েছে। ছোটবেলা থেকেই রক্ত দিয়ে আসছি। রোগীর যখন যেখানে প্রয়োজন সেখানে স্ব-শরীরে হাজির হয়ে রক্তদান করি। এ পর্যন্ত আমি ২৬ বার রক্ত দিয়েছি।

হৃদয়ের বন্ধন ব্লাড ব্যাংক এর সাধারণ সম্পাদক নয়ন মজুমদার বলেন, এই সংগঠনের ১৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি আছে।কিন্তু কাজ করছেন ২৭ জন স্বেচ্ছাসেবক।এ পর্যন্ত ৩০০ জনেরও বেশি ‘রক্তদাতা’ এই সংগঠনের ‘ডোনার’ সদস্য হিসেবে তালিকাভুক্ত হয়েছেন।তবে এরা কেউ পেশাদার রক্তদাতা নন। এ পর্যন্ত সংগঠনের পক্ষ থেকে ৩২৫ জন রোগীকে রক্ত দিয়ে সুস্থ্য করে তুলেছি।

সংগঠনের সহ-সভাপতি কবিরুল ইসলাম বকুল বলেন, আমরা সবাই পড়াশোনা করি।পড়াশোনার ফাঁকে মানব কল্যাণে কাজ করার চেষ্টা করছি। রক্ত কখনো টাকায় বিক্রি করি না। বিত্তবানরা যদি কেউ এগিয়ে এসে আমাদের পাশে দাঁড়ায় তবে আমরা আমাদের লক্ষে পৌঁছাতে সক্ষম হবো। 

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
যশোর,ব্লাড ব্যাংক,মানবতা
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close