সবুজ হোসেন , নওগাঁ প্রতিনিধি

  ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১

প্রতিশ্রুতির জোয়ারে ভাসাতে চাইনা

'খট্টেশ্বর ইউনিয়নবাসীর প্রত্যাশা পূরণে ভূমিকা রাখতে চাই'

নির্বাচন উপযোগী সব ইউনিয়ন পরিষদের ভোট আগামী নভেম্বর মাসের মধ্যে শেষ করতে চায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তবে এ নির্বাচন ডিসেম্বর পর্যন্ত গড়াতে পারে। চার ধাপে এসব নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে।

চলতি মাসের শেষর দিকে বা অক্টোবরের শুরুতে এসব নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করার পরিকল্পনা রয়েছে ইসির।

এদিকে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার ১নং খট্টেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন নিয়ে প্রার্থী হতে চান উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জামিনুল ইসলাম জনি।

ইতোমধ্যে তিনি এলাকায় নির্বাচনী প্রচার চালাচ্ছেন বিরামহীনভাবে। পরিশ্রম, সাহস, ইচ্ছাশক্তি, একাগ্রতা আর মেধার সমন্বয়ে তৃণমূল পর্যায়ে সাধারন মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য স্থানীয় সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড সঠিক ও সুচারুভাবে গড়ার জন্য জামিনুল ইসলাম জনি খট্টেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে জামিনুল ইসলাম জনির সাথে কথা হলে তিনি নির্বাচনী বিভিন্ন দিক দিয়ে কথা বলেন। কি উপলব্ধি থেকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করছেন এমন প্রশ্নের জবাবে জামিনুল ইসলাম জনি বলেন, চারদিকে তারুণ্যের জয়গান। বর্তমান প্রজন্মই দেশের চালিকা শক্তি। সেই ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবে তৃণমূল পর্যায়ে মানুষের জন্য কাজ করতে চাই।

ইউনিয়ন পরিষদ হচ্ছে দেশের সব চেয়ে প্রাচীনতম স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান। যার মাধ্যমে একদম প্রান্তিক পর্যায়ে মানুষের জন্য ব্যাপকভাকে কাজ করার সুযোগ আছে। যেমন, গণসংযোগ কার্যক্রম, রাজস্ব ও বাজেট সংক্রান্ত কার্যক্রম, উন্নয়নমূলক কার্যক্রম, বিচার বিষয়ক কার্যক্রম, অন্যান্য দায়িত্ব ও কর্তব্য, সচরাচর জিজ্ঞাসাসহ একটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের ২০০টির অধিক কাজ করার পরিধি আছে। যা সঠিকভাবে করতে পারলে উন্নয়নমূখী ও মডেল ইউনিয়ন গড়ে তোলা সম্বব বলে মনে করি। সেই উপলব্ধি থেকেই সেবার ব্রতি নিয়ে খট্টেশ্বর ইউনিয়নবাসীর জন্য কাজ করতে চাই।

বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার শহর থেকে গ্রাম পর্যন্ত যে উন্নয়নের ধারা অব্যহত রেখেছেন, সেই উন্নয়ন ও সুশাসন এর ধারা তৃণমূলের মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে বন্ধপরিকর। যার কারনেই মনোস্থির করেছি আওয়ামী লীগ এর দলীয় সমর্থন নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন করার।

দলীয় এবং ইউনিয়নবাসীর সমর্থন পেতে কতটা আশাবাদী জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান। আমার দাদা মরহুম আজিম উদ্দীন সরদার ১৯৭৫ সালে খট্টেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য ও ১৯৯১ সালে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। আমার চাচা আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন হেলাল ২০০৩ সালে খট্টেশ্বর ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান হিসেবে প্রথম জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হন।

এরপর ২০০৯ সালে রাণীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে বিজয়ী হন। ২০১৯ সালে রাণীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করে বিজয়ী হন।

বর্তমানে আমার চাচা জনগনের ভালাবাসা ও আওয়ামী লীগের জন্য একজন দিবেদিত প্রাণ হওয়ায় প্রাণপ্রিয় নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলীয় মনোনয়ন দিয়েছিলেন এবং জনগনের সমর্থন ও ভালোবাসায় বর্তমানে নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে সফলভাবে জনগনের প্রতিনিধিত্ব করছেন।

এছাড়া ২০০০ সালের ১৯ জুন আমার ছোট চাচা তৎকালীন রানীনগর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম নজুকে সর্বহারারা নৃশংসভাবে জবাই করে হত্যা করে। আমার চাচা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছিলেন সফলভাবে।

আমিও অনেকবার রাজনীতি করতে গিয়ে বার বার জুলুম -নির্যাতনের স্বীকার হয়েছি। তবুও দমিয়ে যাইনি, বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারন করে রাজনীতি করে যাচ্ছি মানুষের কল্যানে। আমি এবং আমার পরিবার মামলা-হামলার স্বীকার হয়েছি অনেক বার। যা এলাকার সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ অবগত আছেন। সব কিছু বিবেচনায় আশা করছি দলমত নির্বিশেষে সকলের দোয়া, ভালোবাসা ও সমর্থন পাবো।

নির্বাচিত হলে ইউনিয়নবাসীর প্রত্যাশা পূরণের বিষয়ে জানতে চাইলে জামিনুল ইসলাম জনি বলেন, প্রতিশ্রুতির জোয়ারে ভাসাতে চাইনা। আমি খট্টেশ্বর ইউনিয়নবাসীর প্রত্যাশা পূরণে ভূমিকা রাখতে চাই। হাজারো প্রতিশ্রুতি দিয়ে মানুষের মনে জায়গা করে নিতে চাইনা। স্বচ্ছতা, চেষ্টা, শ্রম ও কাজের মাধ্যমে ইউনিয়নবাসীর সার্বিক উন্নয়ন করতে চাই। এমন বার্তাই সকলের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করছি। এতদিন ব্যক্তিগত উদ্যোগে সামাজিক নানা কর্মকাণ্ড করে আসছি। সেবার পরিধি বাড়াতে তৃণমূলের একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে কাজ করার প্রত্যাশা ব্যক্ত করছি।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
খট্টেশ্বর ইউনিয়ন,প্রত্যাশা পূরণ
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close