শাহরাস্তি (চাঁদপুর) প্রতিনিধি

  ২৮ জুলাই, ২০২১

ভয়ে লাশ স্পর্শ করছে না কেউ

শাহরাস্তিতে করোনায় মৃতদের দাফন করছে স্বেচ্ছাসেবকরা

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতদের নিকটত্মীয়রা কেউ সংক্রমণ ভয়ে লাশ স্পর্শ  করছেন না। সে সময় একের পর এক মরদেহ দাফন করে যাচ্ছে একদল স্বেচ্ছাসেবক। 

তারা ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সদস্য। নিজেদের সংক্রমণ ভয়কে দূরে ঠেলে যথাযোগ্য মর্যাদায় লাশ সমাহিত করেছেন তারা। জাত-কুল ও ধর্মীয় গোঁড়ামির ঊর্ধ্বে গিয়ে শেষকৃত্য করেছেন ভিন্ন ধর্মাবলম্বীর লাশ।

সংগঠন সূত্রে জানা যায়, শাহরাস্তিতে এ পর্যন্ত করোনা বা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ৩২টি লাশের সাথী হয়েছেন তারা। চাঁদপুর জেলায় মোট ৮টি টিমের সদস্যরা দাফন করেছেন ১৮৮টি লাশ।  এর মধ্যে হিন্দু ও ৩ জন ক্রিশ্চিয়ান স্বাবলম্বীর লাশও আছে।

কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবক বলেন, ইসলামী আন্দোলনের আমির মুফতি সৈয়দ রেজাউল করিম পীর চরমোনাইয়ের নির্দেশে চাঁদপুরে যেখানে করোনা মৃত্যুর খবর পান সেখানেই ছুটে যান তারা।

শাহরাস্তি প্রেসক্লাব সিনিয়র সহ-সভাপতি মুঈনুল ইসলাম কাজল জানান, করোনায় আমার এক নিকটাত্মীয় মারা যাওয়ার খবর পেয়েই ছুটে আসেন ইসলামী আন্দোলনের স্বেচ্ছাসেবকেরা। ঈদের আগের রাতে ওই আত্মীয়কে দাফন করতে গিয়ে ভোর হয়ে যায়। সৌজন্যবশত আমি কিছু টাকা দিতে চাইলে তারা হাসিমুখে তা ফিরিয়ে দেন।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ শাহরাস্তি উপজেলার সাধারণ সম্পাদক ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সমন্বয়ক  হাফেজ নুর মোহাম্মদ বলেন, মৃত ব্যাক্তিরা কারও না কারও আপনজন। তাই ভয় লাগে না। লাশের গোসল থেকে শুরু করে শেষকৃত্য সমাধা করে ঘরে ফিরি তখন মনে হয় নিজের এক ভাইকে যথাযোগ্য সম্মান টুকু দিয়ে সমাহিত করতে পেরেছি।

জেলার সভাপতি ও স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রধান শেখ মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন বলেন, করোনায় কেউ মারা গেলে তার স্বজনেরা যাতে ভয় না পান। তার শেষ বিদায়টা নিয়ম মেনে করেন। আপনজনের লাশ দাফন আপনাদেরই দায়িত্ব। একান্ত অপারগ হলে আমাদের স্বেচ্ছাসেবক টিমকে খবর দিন।

পিডিএসও/এসএম শামীম

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
শাহরাস্তি,করোনায় মৃত্যু
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close