শাহাদাত হোসাইন, ফেনী

  ১৬ জুলাই, ২০২১

কাউন্সিলরকে চাঁদা না দেয়ায় গরুর বেপারীকে গুলি করে হত্যা

চাঁদা না দেয়ায় গভীর রাতে গরু বেপারীকে গুলি করে হত্যা করেছে ফেনী পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল কালাম আজাদ।

নিহতের পরিবার জানায়, শাহজালাল নামে ঐ গরু বেপারী ব্যবসার উদ্দেশ্যে নিজ জেলা কিশোরগঞ্জ থেকে ট্রাকভর্তি ১৫টি গরু নিয়ে শুক্রবার রাত আনুমানিক ৩ টার দিকে ফেনীর সুলতানপুরে আসে।

এলাকার ক্যাডেট কলেজ সংলগ্ন আহসান মিয়ার বাড়িতে গরুর ট্রাক পৌঁছার খবর পেয়ে কাউন্সিলর কালাম তার বাহিনী নিয়ে ছুটে আসেন। এসময় কালাম বলেন, আমি এ এলাকার কাউন্সিলর। আমার অনুমতি ছাড়া এলাকায় গরুভর্তি ট্রাক কেন আনলি। কালাম ও ক্যাডার বাহিনী গরুভর্তি ট্রাকের চাবি চায়।

কিন্তু গরু বেপারী শাহজালাল চাবি দিতে অস্বীকৃতি জানায়। কালাম ও তার বাহিনীর শোর চিৎকার ও গাল মন্দের আওয়াজ শুনে শাহজালালের চাচাতো ভাই মো. আল-আমিন ঘর থেকে বের হয়। আল আমিন  শাহজালালকে তার ভাই পরিচয় দিয়ে গরুগুলো ব্যবসার উদ্দেশ্যে এলাকা থেকে এনেছে বলে জানায়।

খবর শুনে কালাম আরো বেপরোয়া হয়ে আল আমিনকে মারধর শুরু করেন। তার স্ত্রী সুমি কালামের হাতে পায়ে ধরে আল-আমিনকে ছাড়িয়ে নেন। তাৎক্ষনিক ঘটনা জানাজানি হলে কাউন্সিলর ও তার সহযোগীরা ক্ষোভে শাহজালালকে মোটর সাইকেলে তুলে নিয়ে যায়। কিছুদুর যাবার পর শাহজালালকে গুলি করে রাস্তার পাশের পুকুরে লাশ ফেলে পালিয়ে যায়। নিহত শাহজালাল (২৭) কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ থানার সাগুলি গ্রামের আবদুল জব্বার এর ছেলে।

ঘটনার খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে সাগর নামে একজনকে আটক করা হয়। কিন্তু মূল ঘাতক কাউন্সিলর কালাম এখনো পলাতক রয়েছে।

এদিকে পুলিশ সুপার খোন্দকার নুরুন্নবী (পিপিএম, বিপিএম) ও পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ফেনী মডেল থানার পরিদর্শক নিজাম উদ্দিন জানান, ঘটনার রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে পুলিশ। অপরাধী যেই হোক তাকে আটক করা হবে।  

পিডিএসও/এসএম শামীম
 

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close