আমতলী (বরগুনা)

  ১১ জুন, ২০২১

২ ইউনিয়নের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, বিপাকে ৩০ হাজার মানুষ

বরগুনার আমতলী উপজেলার হলদিয়া  ইউনিয়ন ও পটুয়াখালী জেলার গলাচিপা উপজেলার ঘোলখালী  ইউনিয়নের নলুয়াবগী ও টেপুরা খালের উপর নির্মিত আয়রণ ব্রিজটির স্লিপার ভেঙে পড়ায় চলাচল বন্ধ রয়েছে দুই ইউনিয়নের ৩০  হাজার মানুষের।

হলদিয়া ইউনিয়নের টেপুরা বাজার সলঘ্ন এ ব্রিজটি দিয়ে প্রতিদিন বলইবুনিয়া, নলুয়াবগী, টেপুরা, উত্তর টেপুরা, দক্ষিণ টেপুরা, তক্তাবুনিয়া গ্রামের জনসাধারণ চলাচল করেন। ৪/৫ বছর পূর্বে স্লিপার ভেঙে যাওয়ার পর স্থানীয়রা চাঁদা তুলে জোড়া তালি দিয়ে চলাচল করছে।  সম্প্রতি ব্রিজটির স্লিপার  এমনভাবে ভেঙে পড়েছে  জনগণের দুভোর্গের কোনো শেষ নাই  বলে জানান, ভুক্তভোগীরা। 

টেপুরা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য মো. আবু সালেহ বলেন ব্রিজটির স্লিপার ভেঙে পড়ায় সাধারণ মানুষের চলাচল বন্ধ রয়েছে। গলাচিপা উপজেলা এলজিইডি সূত্রে জানা গেছে, ২০০৫ সালে টেপুরা  খালে এ আয়রণ ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়। 

এ ভেঙা ব্রিজের বিষয় বলইবুনিয়া গ্রামের আব্দুল মালেক বলেন, এই ব্রিজটি দুই ইউনিয়নের ১০টি গ্রামের মানুষের যোগাযোগের মাধ্যম। এই ব্রিজ পাড় হয়ে, ঘোলখালী ইউনিয়নের বলইবুনিয়া গ্রামের অনেক ছাত্র-ছাত্রী টেপুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, টেপুরা দাখিল মাদ্রাসা, কাঠালিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়  পড়াশুনা করতে আসে। ব্রিজটির স্লিপার ভেঙে পড়ায় ছাত্র-ছাত্রীদের মাদ্রাসা ও স্কুলে যাওয়া আসায় অনেক ব্যাঘাত ঘটছে। 

ভুক্তভোগিরা জানান, এই ব্রিজটি মেরামত করে দিলে হলদিয়া ইউনিয়ন ও পার্শ্ববর্তী পটুয়াখালী জেলার গলাচিপা উপজেলার ঘোলখালী ইউপির ১০টি গ্রামের মানুষদের যোগাযোগ ব্যবস্থার দুঃখ দুর্দশা দূর হবে।

এবিষয়ে গলাচিপা উপজেলা এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলীর অফিস সূত্রে জানা যায়, ওখানে গার্ডার ব্রিজ নির্মান করার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। 

আমতলী উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন মুঠোফোনে বলেন, গলাচিপা উপজেলা প্রকৌশলী অফিসের সাথে যোগাযোগ করে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ লাগবে জরুরি ভিত্ত্বিতে চেষ্টা চলছে। 

পিডিএসও/এসএম শামীম

 

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
ইউনিয়ন,যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close