বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি

  ১৭ মে, ২০২১

দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মা আর শিকলে বাঁধা মানসিক প্রতিবন্ধী ছেলের দায়িত্ব নিলেন এমপি শিবলী

দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী মা আর শিকলে বাঁধা মানসিক প্রতিবন্ধী সন্তানকে নিয়ে বিপাকে পড়া অসহায় মায়ের পরিবারটির দায়িত্ব নিলেন দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক।

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট থানার সিংড়া ইউপির সাতপাড়া গ্রামের স্বামীহারা মজিদের স্ত্রী দৃষ্টি প্রতিবন্ধী আমেনা খাতুন (৭৫)। ৩ সন্তানের মধ্যে দুই ছেলে আগেই পৃথিবী থেকে চলে গেছে ও এক ছেলে লুৎফর (৪০) তাও আবার পাগল। প্রতিবন্ধী সন্তানের জন্য কোন প্রতিবন্ধী ভাতা না পেয়ে বেঁচে থাকার জন্য বাধ্য হয়ে এই বয়সেও তাকে মানুষের কাছে হাত পেতে চালাতে হচ্ছিল সংসার। 

এদিকে, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী আমেনা খাতুন ও তার শিকলে বাঁধা সন্তানকে নিয়ে গত ১৩ এপ্রিল একই গ্রামের সমাজসেবক মাহাবুর রহমান হীরক ও সমাজসেবক ইঞ্জিনিয়ার ছাপ্পুর মাধ্যমে শিকলে বাঁধা দুই পা এবং তার দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মাকে নিয়ে গ্রামের রাস্তায় চলার সময় এক ভিডিও প্রকাশ করলে তা স্থানীয় সংসদ সদস্য শিবলী সাদিকের দৃষ্টি গোচর হয়। সঙ্গে সঙ্গে তিনি নির্দেশ দেন পরিবারটির খোঁজখবর নিতে। 

পরে সাংসদ শিবলী সাদিকের নির্দেশে ঘোড়াঘাট থানার ওসি আজিম উদ্দিন ও প্রতিনিধি দল চাল, ডাল, তেল, সব ধরনের কাঁচা বাজার, শুকনো খাবার, সাবান, কাপড় ও নগদ অর্থ তুলে দেন অসহায় পরিবারটির হাতে। সেই সাথে পরিবারটির সারা জীবনের ব্যয় ভার নিজের কাঁধে তুলে নেন সাংসদ শিবলী সাদিক।

ঘোড়াঘাট থানার ওসি আজিম উদ্দিন বলেন, এমপি স্যারের দেয়া উপহার আমরা তাদের বাড়িতে এসে পৌঁছে দিয়ে গেলাম এবং দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মা এবং মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলের সারা জীবনের ব্যয়ভার এমপি মহোদয় বহন করবেন বলে জানিয়ে দেন তিনি। এসময় ওসি সমাজের বৃত্তবান লোকদের এসকল পরিবারের পাশে এগিয়ে আসার জন্য বিশেষভাবে আহবান জানান।

জানতে চাইলে সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক মুঠোফোনে বলেন, ভিডিওটি আমার নজরে আসার সাথে সাথে আমি ঐ বৃদ্ধার বাড়িতে লোক পাঠিয়েছি তার খোঁজখবর নেয়ার জন্য। আমি যতদিন বেঁচে থাকব ততদিন, ঐ পরিবারটির ব্যয়ভার আমি বহন করব। তাদের পুরো দায়িত্ব আমি আমার নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছি। আমার প্রতিনিধিরা মাসে দুইবার করে পরিবারটির খোঁজখবর নিবে এবং সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করবে।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
এমপি শিবলী সাদিক,দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী,দিনাজপুর
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close