reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ২৯ এপ্রিল, ২০২১

কোরআন পড়া শেষে নিলিমা দেখেন পুত্রবধূর গলাকাটা লাশ!

কোরআন তেলাওয়াত করছিলেন নিলিমা খাতুন। পড়া শেষ করে দেখেন পুত্রবধূর গলাকাটা লাশ।  ঘটনাটি ঈশ্বরদীতে। প্রকাশ্যে দিনের বেলায় মুক্তি খাতুন রিতা (২৭) নামের ওই গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। গৃহবধূর শাশুড়ি নিলিমা কোরআন পড়া শেষ করে ঘরে গিয়ে এ দৃশ্য দেখতে পান।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঈশ্বরদী পৌরসভার মশুড়িয়া পাড়া এলাকায় নির্মম হত্যাকাণ্ডটি ঘটেছে। রিতা ওই এলাকার বায়েজিদ সারোয়ারের স্ত্রী।

প্রত্যক্ষদর্শী গৃহবধূর শাশুড়ি নিলিমা খাতুন বেনু জানান, ছেলে বায়েজিদ সারোয়ার রূপপুর পারমাণিবক বিদ্যুৎ প্রকল্পে চাকরি করে। বেলা ১১টার সময় ৫ জন যুবক চাকরির জন্য তার বাড়ি আসে। বায়েজিদ সেই সময় বাজারে থাকায় ড্রইংরুমে তাদের আপ্যায়ন করেন পুত্রবধূ রিতা।

আরও পড়ুন : করোনা নাকি সাধারণ সর্দি-জ্বর, যেভাবে বুঝবেন

সে সময় তিনি তার ঘরে কোরআন পড়ছিলেন। হঠাৎ হত্যাকারীরা তার ঘরে ঢুকে গলা টিপে ও শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করে। তিনি চিৎকার করলে হত্যাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে পুত্রবধূর ঘরে গিয়ে গলাকাটা লাশ পড়ে থাকতে দেখেন।

আরও পড়ুন : হিন্দু ধর্ম ছেড়ে মুসলমান হলেন একই পরিবারের ৩ জন

পাবনার পুলিশ সুপার মুহিবুল ইসলাম খান ও ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ফিরোজ কবির ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। হত্যার বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
পাবনা,কোরআন পড়া,পুত্রবধূ,গলাকাটা লাশ
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close