আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি

  ২০ জানুয়ারি, ২০২১

আমতলীতে গ্রাম আদালতে ন্যায় বিচার পাচ্ছেন সাধারণ মানুষ

গ্রাম আদালত সক্রিয় করণ ২য় পর্যায় প্রকল্প বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার আমতলী সদর ইউনিয়নে সক্রিয়ভাবে পরিচালিত হচ্ছে গ্রাম আদালতের কার্যক্রম। ২০১৭ থেকে ২০২০ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ৪৭২টি দেওয়ানী ও ফৌজদারী মামলা দায়ের হয়। এর মধ্যে ৪৪৩টি  মামলা নিষ্পত্তি হয়েছে। 

দেওয়ানী মামলায় ২০ টাকা আর ফৌজদারী মামলায় ১০ টাকা ফি দিয়ে গ্রাম আদালত আইন অনুসারে মামলা দায়ের করতে হয় গ্রাম আদালতের সহকারীর কাছে। এরপর গ্রাম আদালতের সহকারী মামলার বিষয় ইউপি চেয়ারম্যানকে অবহিত করলে ইউপি চেয়ারম্যান, ২ জন ইউপি সদস্য ও স্থানীয় গণ্যমান্য ২ জনের সমন্বয়ে ৫ জনের গ্রাম আদালতের বিচারিক প্যানেল গঠন করেন।

গ্রাম আদালতে স্বল্প খরচে অল্প সময়ে বিচার পেতে এখন আমতলীর সদর ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ থানা ও কোর্টে না গিয়ে ছুটে যাচ্ছেন গ্রাম আদালতে। এখানে মামলা করে  মানুষ ব্যাপক সুবিদা পাচ্ছেন। 

আমতলী সদর ইউনিয়নের গ্রাম আদালতের সহকারী ঝর্না আক্তার জানান, ২০১৭ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ৪৭২টি দেওয়ানী ও ফৌজদারী মামলা দায়ের হয়েছে। তার মধ্যে ৪৪৩ টি মামলা  প্রাথমিক শুনানী শেষে বিচার নিস্পত্তি হয়েছে। এতে ৪০ লাখ ৫২ হাজার দুই শত ৫২ টাকা আদায় পূর্বক সংশ্লিষ্ট বিচার প্রার্থীদের প্রদান করা হয়েছে। 

বিচার প্রার্থী জয়নাল মিয়া বলেন, আমার একটি জমি সংক্রান্ত সমস্যায় গ্রাম আদালতে মামলা দায়ের করলে খুব অল্প  সময়ে আমার সমস্যার সমাধান হয়েছে। কোর্টে গেলে তো বছরের পর বছর লাগতো। তার চেয়ে আমাদেরে গ্রাম আদালতই ভালো। 

আমতলী সাংবাদিক ক্লাবের সভাপতি দেওয়ান মস্তফা কবির মুঠোফোনে বলেন, আমতলী সদর ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ যেভাবে গ্রামীন আদালতের মাধ্যমে সুবিদা পাচ্ছে তাতে গ্রামীন আদালত উপজেলার প্রতিটা ইউনিয়নে কার্যকর হলে প্রান্তিক মানুষ ব্যাপক সুবিদা পাবে। 

উক্ত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইতোমধ্যে গ্রাম আদালতের বিচারক হিসাবে দেশের সেরা ১০জন চেয়ারম্যানের মধ্যে বরিশাল বিভাগের একমাত্র শ্রেষ্ট বিচারক ও চেয়ারম্যান হিসাবে খ্যাতি  অর্জন করেন।

বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলায় রয়েছে ৭ টি ইউনিয়ন পরিষদ। আমতলী সদর ইউনিয়ন পরিষদ তারমধ্যে অন্যতম একটি। আমতলী সদর ইউনিয়ন পরিষদের জনবান্ধব চেয়ারম্যান মো. মোতাহার উদ্দিন মৃধা। ১৬ টি গ্রামের সমন্বয়ে গঠিত উল্লেখীত আমতলী ইউনিয়ন পরিষদটি।

ইউনিয়নটিতে বসবাসকৃত বর্তমান লোকসংখ্যা প্রায় ৩১ হাজার এবং ভোটার সংখ্যা প্রায় ১৯ হাজার। ইউনিয়নবাসীর কাছে ন্যায় বিচারক হিসাবে খ্যাতি পেয়েছেন চেয়ারম্যান মোতাহার উদ্দিন মৃধা।

এলাকার সার্বিক উন্নয়নে নিজেকে উৎসর্গ করতে চান জনবান্ধব ও বিচক্ষণ এই চেয়ারম্যান। ইউনিয়ন-এলাকার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে চেয়ারম্যান বলেন, আমাদের ইউনিয়নটি একটি আদর্শ ইউনিয়ন। ইউনিয়নে নেই কোনো বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং এমনকি জঙ্গীবাদ।

ইউনিয়নে বসবাসরত অনেকের সাথে কথা বলে জানা যায়, তাদের চেয়ারম্যান মো. মোতাহার উদ্দিন মৃধা একজন সদালাপী, পরিশ্রমী এবং এলাকার উন্নয়নে নিবেদিত মানুষ।

পিডিএসও/এসএম শামীম

 

আমতলী,গ্রাম আদালত,ন্যায় বিচার
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close