ঘোড়াঘাটে দুর্গাপূজার ৮ মণ্ডপ ঝুঁকিপূর্ণ

প্রকাশ : ২০ অক্টোবর ২০২০, ১৬:৫৫ | আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০২০, ১৭:০৭

ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) প্রতিনিধি
প্রতীকী ছবি

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে  বড় ধর্মীয় উৎসব শারর্দীয় দুর্গাপূজা। আর বাকী মাত্র একদিন। বৃহস্পতিবার  মহাষষ্ঠী তিথিতে বোধন ও দেবী বন্দনার মধ্যে দিয়ে দুর্গাপূজা শুরু হবে। শেষ মুহূর্তে মৃৎশিল্পীরা এখন  প্রতিমা রং তুলির আঁচড়সহ সাজ সজ্জায় ব্যস্ত সময় পার করছেন।   

উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি  কার্তিক সরকার ও  সাধারণ সম্পাদক জগদীশ চক্রচর্তী বলেন, উপজেলায় মোট ৩২ টি মণ্ডপে শারর্দীয় দুর্গাপূজা উদযাপন হবে। তার মধ্যে ৮ টি মণ্ডপ অধিক ঝুঁকিপূর্ণ। মণ্ডপ গুলো হলো- রানীগঞ্জ বাজার, বড়গলি (আমবাগান), কাদিমনগর, ওসমানপুর, বলোগাড়ী কইপাড়া, বুলাকীপুর,  মরিচা, বিরাহিমপুর কাচারি শারর্দীয় দুর্গাপূজা মণ্ডপ।

ঘোড়াঘাট উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি সাংবাদিক মনোরঞ্জন মোহন্ত ভুট্টু বলেন,  এবারে দুর্গাপূজা মণ্ডপগুলোতে  পুলিশ, আনসার, ভিডিপি, গ্রাম পুলিশ সর্বদা নিয়োজিত না থাকায় পূজা মণ্ডপে কমিটির পক্ষে থেকে নিরাপত্তার জন্য স্বেচ্ছাসেবক গঠন করা হয়েছে।   

ইতিপূর্বে শারর্দীয় দুর্গাপূজা সুষ্ঠু,  সু-শৃংখল ও শান্তি পূর্ণভাবে  স্বাস্থ্যবিধি মোতাবেক উদযাপনে লক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসন এবং থানা পুলিশ প্রস্তুতিমূলক সভা করেছেন। দিনাজপুর-১ সাংসদ ও হিন্দু কল্যাণ ট্রাস্টির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি, প্রধানমন্ত্রীর প্রদত্ত অনুদানের চেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হাতে তোলে দেন।

দিনাজপুর-৬ সাংসদ শিবলী সাদিক এমপি,  উপজেলা চেয়ারম্যান ও  উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, আব্দুর রাফে খন্দকার সাহানশা উপজেলার ৩২ টি পূজা মণ্ডপে আর্থিক সহযোগিতা করেন। অপরদিকে পৌর মেয়র পৌর সভায় ১২ টি মণ্ডপে অনুদান প্রদান করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাফিউল আলম বলেন, করোনাভাইরাস কারণে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা উদযাপন হবে।পূজা চলাকালীন যে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে দ্রূত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিম উদ্দিন বলেন, সনাতন ধর্মাবলম্বী শারর্দীয় দুর্গাপূজা শান্তিপূর্ণভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

পিডিএসও/এসএম শামীম