নাঙ্গলকোটে কয়েক শ’ হেক্টর জমিতে জলাবদ্ধতা

প্রকাশ | ১৮ অক্টোবর ২০২০, ১২:৫৩

মো. দুলাল মিয়া, নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের গজারিয়া খালে বাঁধ দিয়ে পুরাতন ডাকাতিয়া নদীতে মাছ চাষ করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে।এতে প্রায় ২০ গ্রামের কয়েক শ’ হেক্টর ফসলি জমিতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। ফলে সময় মত বীজতলায় বীজ ফেলতে পারছেন না কৃষকরা। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার ঢালুয়া ইউপির খাঁজুরিয়া গ্রামে ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ডাকাতিয়া নদীর একটি মাত্র সংযোগ খাল গজারিয়া। বাঁধের এক পাশে পুরাতন ডাকাতিয়া নদী আর অন্য পাশে গজারিয়া খাল। প্রভাবশালীরা গজারিয়া খালের মুখ বন্ধ করে পুরাতন ডাকাতিয়া নদী মাছ চাষ করছেন। যা ওই ইউপির খাঁজুরিয়া, চিওড়া, মোগ্রা, হাসনপুর, তেলপাই, মৌকরা ইউপির পৌঁছির, ঘোরকমুড়া, আলিয়ারা, মোহেশ্বর, পরকরা, মৌকরা, সুরপুর, ভাসলংকা, বিষ্ণুপুর, গোমকোট, ময়ূরা ও মাঝিপাড়াসহ অন্তত ২০টি গ্রামের পানি নিষ্কাশনের এক মাত্র পথ গজারিয়া খাল। যার পানি পুরাতন ডাকাতিয়া নদী হয়ে মূল ডাকাতিয়া নদীতে গিয়ে পড়ে। সম্প্রতি ডাকাতিয়া নদী খননের কাজ করা হয়। নকশা অনুযায়ী পুরাতন ডাকাতিয়া নদীর ওপর খনন কাজ করা হয়। সে সুযোগে মৌকরা ইউপির ঘোরকমুড়া গ্রামের মৃত্যু আক্তারুজ্জামানের ছেলে সেলিম, তার ছেলে রাসেল ও চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শাখতলা গ্রামের ইউপি সদস্য আলমসহ গজারিয়া খাল ও মুল ডাকাতিয়া নদীতে বাঁধ নির্মাণ করে পুরাতন ডাকাতিয়া নদীতে মাছ চাষ করছেন।

খাঁজুরিয়া গ্রামের মৃত আব্দুস ছাত্তারের ছেলে কৃষক আপজালুর রহমান বলেন, খালের বাঁধ দিয়ে পুরাতন ডাকাতিয়া নদীতে মাছ চাষ করছেন সেলিম, তার ছেলে রাসেল ও চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শাখতলা গ্রামের আলম মেম্বার। এতে করে ওপরের জমিন দিয়ে পানি যাওয়ার ফলে ওই সব ফসলি জমিনের ভাঙন দেখা দেয়। বছরে একটি সিজনে ধান করি। তাও বোরো ধান। এখনো বীজতলা তৈরি করতে পারিনি। 

পৌঁছির গ্রামের মৃত. এতিম আলীর ছেলে কৃষক মো. শাহ আলম বলেন, পৌঁছির, খাঁজুলিয়া ও মাঝিপাড়া গ্রাম থেকে শুরু করে প্রায় ২০টি গ্রামের পানি প্রবাহিত হয় এ খাল দিয়ে। সম্প্রতি সরকার খালটি খনন কাজ করার পরে প্রভাবশালীরা খালে বাঁধ দিয়ে পুরাতন ডাকাতিয়া নদীতে মাছ চাষ করছে। এতে পানি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। 

অভিযুক্ত ইউপি সদস্য রাসেল জানান, আমরা সমিতির মাধ্যমে এ পুরাতন ডাকাতিয়া নদী লিস নিয়েছি। এখানে মাছ চাষ করতেছি। পানি নিষ্কাশনের জন তিনটি পাইপ দেয়া হয়েছে। বর্তমানে উভয় দিকে পানি সমান রয়েছে।  

এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট উপজেলা নির্বাহী অফিসার লামইয়া সাইফুল জানান, ডাকাতিয়া নদীতে মাছ চাষের বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের আলোকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পিডিএসও/ জিজাক