পাবনায় কলেজ মাঠে ঘাস চাষের অভিযোগ

প্রকাশ : ১৪ আগস্ট ২০২০, ১৫:০৬

পাবনা ও ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধি

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় করোনাভাইরাসের কারণে কলেজ বন্ধ থাকায় ঐতিহ্যবাহি সরকারি হাজী জামাল উদ্দীন ডিগ্রী কলেজ মাঠে (মাসকালাই) ঘাস চাষ করে গোখামারিদের কাছে বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে অধ্যক্ষ শহিদুজ্জামানের বিরুদ্ধে। এদিকে সরকারি কলেজ মাঠে ঘাস চাষ করায় স্থানীয়দের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। অধ্যক্ষের দাবি, করোনাভাইরাসের কারণে কলেজ বন্ধ থাকায় তিনি কলেজ মাঠে ঘাসের চাষ করেছেন।

সরেজমিন দেখা যায়, কলেজেটির প্রায় ২ একর মাঠ জুড়ে হাটু পরিমাণ (মাসকলাই) ঘাস চাষ হয়েছে। মাঠের এক পাশে ২৫/৩০ টি গরু সারিদ্ধভাবে বেঁধে রেখে তা খাওয়ানো হচ্ছে। 

জানা গেছে, ভাঙ্গুড়া উপজেলার ঐতিহ্যবাহি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারি হাজী জামাল উদ্দীন ডিগ্রী কলেজ ১৯৭০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে ২০১৯ সালে সারা দেশে সকল কলেজ সরকারি করণের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর মধ্যে এই কলেজটিও জাতীয়করণের আওতায় আসে। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে সারা দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান৩১ শে আগস্ট পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করে শিক্ষা অধিদপ্তর। সেই থেকে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিরও ক্লাস বন্ধ রয়েছে। 

সরকার ঘোষিত ছুটির সুযোগে কলেজের প্রাচীর ঘেরা বিশাল মাঠে (মাসকালাই) ঘাসের চাষ করেন অধ্যক্ষ শহিদুজ্জামান। পরে সেই ঘাসগুলি গোখামারিদের নিকট ৩০ হাজার টাকা বিক্রি করেন তিনি। 

জানতে চাইলে অধ্যক্ষ শহিদুজ্জামান বলেন, করোনভাইাসের কারণে কলেজ মাঠে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারিরা ঘাসের চাষ করেছে। কলেজ মাঠের ঘাস বিক্রি করে যা আয় হবে তা দিয়ে কলেজের বাগান করা হবে বলেও জানান তিনি। তবে কত টাকার ঘাস বিক্রি করেছেন? এমন প্রশ্ন তিনি কৌশলে এড়িয়ে যান। 

এ বিষয়ে কলেজের সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশরাফুজ্জামান বলেন, কলেজ মাঠে ঘাসের চাষ করার বিষয়ে তিনি অবগত নন। তবে বিষয়টি নিয়ে অধ্যক্ষের সাথে কথা বলবেন বলে জানান তিনি।

পিডিএসও/এসএম শামীম