চকরিয়া-লামা-আলীকদম রোড কমিটির কার্যালয় থেকে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রকাশ : ০৪ আগস্ট ২০২০, ২০:৪৩

চকরিয়া প্রতিনিধি

কক্সবাজারের চকরিয়া-লামা-আলীকদম রোড কমিটির অফিস সচিব মিন্টু কুমার বড়ুয়া (৪৬) নামের এক ব্যক্তির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। নিহত মিন্টু কুমিল্লা লাকসাম উপজেলার বাখই ইউনিয়নের ধুপচর পাড়া এলাকার মৃত রুহিনী কুমার সিংহের ছেলে। তিনি বর্তমানে চকরিয়া পৌরসভার ৬নম্বর ওয়ার্ডের বড়ুয়া পাড়া এলাকার বাসিন্দা বলে সূত্র জানায়।

মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে চকরিয়া পৌর বাস টার্মিনালস্থ আরাকান সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়ন অন্তভূক্ত চকরিয়া-লামা-আলীকদম রোড কমিটির কার্যালয় থেকে পুলিশ নিহতের লাশটি উদ্ধার করে। 

স্থানীয় শ্রমিক ও পরিবার সুত্রে জানা যায়, নিহত মিন্টু কুমার বড়ুয়া পেশায় একজন শ্রমিক কার্যালয়ের অফিস সচিব। সে চকরিয়া পৌর বাস টার্মিনালস্থ আরাকান সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের অন্তভূক্ত চকরিয়া-লামা-আলীকদম রোড কমিটির কার্যালয়ে চাকরি করে সংসার চালাতো। সংসার জীবনে তার স্ত্রী ও দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

চকরিয়া-লামা-আলীকদম রোড় কমিটির সাধারণ সম্পাদক রফিক উদ্দিন বলেন, চকরিয়া পৌর বাসটার্মিনালস্থ আরাকান সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের অন্তভূক্ত চকরিয়া-লামা-আলীকদম রোড কমিটির কার্যালয়ে (আমাদের অফিসে) নিহত মিন্টু কুমার বড়ুয়া দীর্ঘ প্রায় ১৩বছর ধরে অত্যন্ত সততা ও নিষ্ঠার সহিত অফিস সচিব এর দায়িত্ব পালন করে আসছে। বিকেলে এক শ্রমিক আমাকে ফোন করে অফিস সচিব মিন্টু গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার বিষয়টি জানালে আমি তাৎক্ষণিক ভাবে শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও থানা পুলিশকে অবহিত করি। পরে পুলিশ গিয়ে অফিসের দরজা খুলে নিহতের লাশ ঝুলন্তবস্থা থেকে উদ্ধার করেন। তবে কি কারণে সে আত্মহত্যা করেছে তা আমাদের কারো বোধগম্য হচ্ছে না। 

চকরিয়া থানার এস আই মো: মিজান বলেন, ঘটনার সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষণিক ভাবে ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতের অফিস কার্যালয়ের বীমে ঝুলন্তবস্থা থেকে নিহত মিন্টু কুমার বড়ুয়ার লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে লাশের প্রাথমিক সুরুতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে লাশটি জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়। 

চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো: মিজানুর রহমান বলেন, পৌর বাস টার্মিনালস্থ চকরিয়া-লামা-আলীকদম রোড কমিটির কার্যালয় ভেতর থেকে পুলিশ মিন্টু কুমার বড়ুয়া নামের এক ব্যক্তির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে। কি কারণে সে আত্মহত্যা করেছে তা ময়নাতদন্ত রির্পোট হাতে না পাওয়া পর্যন্ত বলা যাচ্ছেনা। লাশটি উদ্ধার করে প্রাথমিক সুরুতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ নিয়ে পরিবারের কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।