নিজস্ব প্রতিবেদক

  ০১ জুন, ২০২৩

বাজেট ২০২৩-২৪ : ব্যক্তির আয়কর সীমা সাড়ে তিন লাখ টাকা

ছবি : সংগৃহীত

মুদ্রাস্ফীতির কারণে মানুষের প্রকৃত আয় কমে গেছে। এটিকে বিবেচনায় নিয়ে এবং আয়কর প্রদানকে উৎসাহিত করতে ব্যক্তির করমুক্ত আয়সীমা সাড়ে তিন লাখ টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১ জুন) জাতীয় সংসদের বাজেট-২০২৩-২৪ আলোচনায় এই প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল। আগে ব্যক্তির করমুক্ত আয়সীমা ছিল ৩ লাখ টাকা।

বাজেট অধিবেশনে অর্থমন্ত্রী বলেন, ব্যক্তিশ্রেণির করদাতের করমুক্ত আয়সীমা, করহার এবং করধাপ ২০২০-২১ অর্থবছর থেকে অপরিবর্তিত আছে। মুদ্রাস্ফীতির কারণে করদাতাদের প্রকৃত আয় হ্রাস পেয়েছে এবং অন্যদিকে করমুক্ত আয়সীমা অপরিবর্তিত রয়েছে। এমন প্রেক্ষাপটে করদাতাদের কর প্রদানে স্বাচ্ছন্দ্য বিবেচনায় কোম্পানি ও স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ব্যতীত অন্য করদাতা, বিশেষ করে স্বাভাবিক ব্যক্তিশ্রেণির করদাতাদের করমুক্ত আয়সীমা কিছুটা বৃদ্ধির প্রস্তাব করছি।

করমুক্ত আয়সীমা বৃদ্ধিতে ব্যক্তি করদাতাদের করভার লাঘব হবে এবং তারা কর প্রদানে উৎসাহিত হবেন- এমনটা জানিয়ে অর্থমন্ত্রী প্রস্তাবনায় বলেন, পুরুষ করদাতাদের করমুক্ত আয়সীমা ৩ লাখ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং নারী ও ৬৫ বছর বা তার বেশি বয়সের করদাতাদের করমুক্ত আয়সীমা ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৪ লাখ টাকা করার প্রস্তাব করছি। পাশাপাশি সর্বনিম্ন করহার ৫ শতাংশ এবং সর্বোচ্চ করহার ২৫ শতাংশ নির্ধারণের প্রস্তাব করছি।

এছাড়া প্রতিবন্ধী ব্যক্তি করদাতাদের ক্ষেত্রে বিদ্যমান করমুক্ত আয়সীমা ৪ লাখ ৫০ হাজারের স্থলে ২৫ হাজার টাকা বাড়িয়ে ৪ লাখ ৭৫ হাজার এবং গেজেটভুক্ত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা করদাতার ক্ষেত্রে বিদ্যমান আয়সীমা ২৫ হাজার টাকা বাড়িয়ে ৫ লাখ টাকায় উন্নীত করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

তবে ট্রান্সজেন্ডার বা তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তি করদাতার ক্ষেত্রে এই আয়সীমা আগের তুলনায় ১ লাখ টাকারও বেশি বেড়েছে। বর্তমানে তৃতীয় লিঙ্গের একজন করদাতার করমুক্ত আয়সীমা ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা। কিন্তু প্রস্তাবিত বাজেটে এই সীমা ৪ লাখ ৭৫ হাজারে করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

এদিকে করমুক্ত আয়সীমা নিচে থাকলেও দেশের যে সব নাগরিক আয়কর রিটার্ন দাখিল করেন তাদের ক্ষেত্রে ন্যূনতম কর দুই হাজার টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে জাতীয় সংসদে। একইসাথে সমাজের বিত্তশালীদের নিট সম্পদের ওপর সারচার্জ আরোপের যে বিধান সেখানেও সম্পদের সীমা বাড়ানো হয়েছে। বর্তমানে কোনো ব্যক্তির নিট সম্পদ ন্যূনতম ৩ কোটি হলেই তাকে ১০ শতাংশ সারচার্জ প্রদান করতে হতো। কিন্তু বাজেট প্রস্তাবনায় এই নিট সম্পদের ন্যূনতম পরিমাণ ৪ কোটিতে উন্নীত করার প্রস্তাব করা হয়েছে। তবে নিট সম্পদের সর্বোচ্চ সীমা ৫০ কোটি টাকা অতিক্রম করলে ৩৫ শতাংশ সারচার্জ আরোপের প্রস্তাব করা হয় চলতি বাজেট অধিবেশনে।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আয়কর সীমা,বাজেট
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close