প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ১৬ জুন, ২০২৪

কমল মুরগির দাম সবজির বাজার চড়া

ঈদুল আজহায় ক্রেতাদের চোখ এখন কোরবানির পশুর হাটের দিকে। সেই সুবাদে দীর্ঘদিন পর স্বস্তির বাতাস মুরগির বাজারে। ২০০ টাকার নিচে নেমে এসেছে ব্রয়লার মুরগির দাম। দাম কমেছে অন্য জাতের মুরগিরও। ঈদ সামনে রেখে কাঁচাবাজারে পেঁয়াজ-কাঁচামরিচ ও দামে লম্বা লাফ দিয়েছে শসা-টমেটো।

কারওয়ান বাজার, মিরপুর কাঁচাবাজারসহ রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, কেজিপ্রতি ১৮০ থেকে ১৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে ব্রয়লার মুরগি। দুদিন আগেও যা বিক্রি হয়েছে ২০০ টাকার ওপরে। এছাড়া ৩০০ থেকে ৩২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে সোনালি জাতের মুরগি। লেয়ার মুরগি লাল ৩০০ থেকে ৩২০ টাকা, সাদা ২৬০ থেকে ২৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে দেশি মুরগি এখনো বিক্রি হচ্ছে ৬০০ টাকার ওপরে।

এদিকে ঈদকে কেন্দ্র করে অস্থির হয়ে উঠেছে কাঁচাবাজার। বিশেষ করে ক্রেতা সাধারণের কপালে ভাঁজ পড়ছে শশা-টমেটোর দাম শুনে। প্রতি কেজি শসার জন্য ২০০ টাকা চাচ্ছেন বিক্রেতারা। টমেটোর কেজি চাওয়া হচ্ছে ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা। এক লাফে ডাবল সেঞ্চুরি হয়েছে কাঁচামরিচের দামেও। প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকার বেশি দামে। পাশাপাশি দীর্ঘদিন পর আবার ১০০ টাকা ছাড়িয়েছে পেঁয়াজের দাম।

এ ছাড়া গত সপ্তাহের মতোই ৬০ টাকার নিচে মিলছে না তেমন কোনো সবজিই। প্রতি কেজি লম্বা বেগুন ৬০ থেকে ৭০ টাকা, গোল বেগুন ৭০ থেকে ৮০ টাকা, চিচিঙ্গা ৭০ থেকে ৮০ টাকা, আকারভেদে লাউ ৬০ থেকে ৮০ টাকা, ছোট সাইজের মিষ্টিকুমড়া ১০০ থেকে ১২০ টাকা, জালি ৫০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। কাঁচাকলা ডজনপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ৯০ টাকায়। তবে করলা, পটোল, ঢ্যাঁড়শ ও পেঁপের দাম আছে ৪০ থেকে ৫০ টাকার মধ্যে।

মাছের বাজারে আকারভেদে প্রতি কেজি তেলাপিয়া ২০০ থেকে ২৩০ ও পাঙাশ ২০০ থেকে ২২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে রাজধানীর বাজারগুলোতে।

চাষের রুই, কাতলা ও মৃগেল মাছের দাম প্রতি কেজি ২৮০ থেকে শুরু করে আকার ভেদে ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা, কই ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা ও শিং মাছ ৩৫০ থেকে ৪৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ৬০০ টাকার নিচে মিলছে না পাবদা, টেংরা, কই, বোয়াল, আইড়, ইলিশ, চিতল। তবে আরেক দফা দাম বেড়ে প্রতি ডজন ডিম ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা হয়েছে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close