তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক

  ২৮ নভেম্বর, ২০২২

অ্যাপ লুকিয়ে রাখতে চাইলে

আমাদের স্মার্টফোনে কিছু কিছু অ্যাপ থাকে, যেগুলোতে প্রচুর ব্যক্তিগত ডেটা রেখে দেওয়া হয়। এমনকি আমরা যে স্ক্রিন লকটি ব্যবহার করি, সেটিও। আপনার অগোচরে কেউ আপনার স্মার্টফোন আনলক করে ব্যক্তিগত তথ্য বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করতে পারে। অথবা সেই সব তথ্যের সাহায্যে হতে পারে নানা রকম অপরাধ। এ ধরনের পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য আপনি ব্যক্তিগত বা গুরুত্বপূর্ণ অ্যাপগুলো ডিলিট না করে স্মার্টফোনেই লুকিয়ে রাখতে পারেন। শুধু একটি অ্যাপ ডিজেবল বা আনইনস্টল করা একটি অ্যাপ লুকানোর একমাত্র পথ নয়। তাতে অ্যাপের সব ডেটা হারিয়ে যেতে পারে। তথ্য চুরি থেকে বাঁচতে আপনার স্মার্টফোন থেকে আপনার জরুরি সেই সব অ্যাপ ডিজেবল বা আনইনস্টল না করে বরং লুকিয়ে রাখুন।

আপনার স্মার্টফোনে বিল্ট ইন একটি ফিচার আছে, যা দিয়ে স্মার্টফোনে থাকা অ্যাপগুলো লুকিয়ে রাখা সম্ভব। ফিচারটি আপনাকে একটি পাসকোডে সেট করার জন্য অনুরোধ করবে। পাসকোড সেট হওয়ার পরে আপনি অ্যাপগুলো লুকিয়ে ফেলতে পারবেন সহজে। যখন দরকার হবে পাসকোড দিয়ে আবার লুকানো অ্যাপ দেখতে পারবেন বা তাতে কাজও করতে পারবেন।

কয়েকটি ধাপে কাজটি করতে হবে। প্রথমে আপনার স্মার্টফোনের সেটিংস অপশনে যান। স্ক্রল করে নিচে নামুন এবং প্রাইভেসিতে প্রেস করুন। প্রাইভেসিতে পাবেন প্রাইভেসি প্রটেকশন অপশন। সেখানে গিয়ে হাইড অ্যাপস অপশনে চাপ দিন।

আপনার প্রাইভেসি পাসওয়ার্ড দিন এবং এর পরেই আপনি পাবেন অ্যাপসের তালিকা। সেখান থেকে যেসব অ্যাপ আপনি লুকিয়ে ফেলতে চান, সেগুলো বেছে অন করে দিন। লুকানো অ্যাপের জন্য একটি পাসকোড সেট করুন। মনে রাখবেন, পাসকোডটি অবশ্যই হ্যাশ (#) দিয়ে শুরু এবং শেষ হতে হবে। এই পাসকোড স্মার্টফোনে লুকানো আপনার অ্যাপ দেখতে সাহায্য করবে।

এখন দেখুন আপনার নির্বাচিত অ্যাপ বা অ্যাপগুলো আপনার স্মার্টফোনে নেই। আপনি চাইলে ফোনের ডায়াল প্যাডে পাসকোড প্রবেশ করে লুকানো অ্যাপগুলো ব্যবহার করতে পারবেন এবং লুকানো অ্যাপগুলো স্বাভাবিকভাবে চলবে। চাইলে আপনি এই অ্যাপগুলোর নোটিফিকেশন বন্ধ করে দিতে পারেন। তাতে অ্যাপগুলো আপনার স্মার্টফোনে নেই বলেই মনে হবে সবার।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close