প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২

প্রথম কলাম

বই পড়ায় মানসিক শান্তি

বই পড়লে বাড়ে জ্ঞান-বুদ্ধি। শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকতেও বই পড়ার অভ্যাস দারুণভাবে সাহায্য করে। আসলে বই এবং শরীরের মধ্যে গভীর সম্পর্ক রয়েছে। যে কারণেই বই পড়লে তার সুফল শরীরের ওপরও পড়ে।

মানসিক শান্তি মেলে : সারা দিন কাজের পর ৬০-৭০ শতাংশ মানুষই মন-মেজাজ ভালো করতে টিভি দেখে থাকেন। কিন্তু তাতে কি সত্যিই মন শান্ত হয়? গবেষণা তো উল্টো কথা বলছে। বিজ্ঞানের কথা যদি শোনেন, তাহলে মন এবং মস্তিষ্কের ক্লান্তি দূর করতে টেলিভেশনের পরিবর্তে বইয়ের সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতুন। দেখবেন বেশি উপকার পাবেন। তাছাড়া টিভি দেখলে শরীরের কোনো উপকার হয় না, যা বই পড়লে হয়।

মনোযোগ বৃদ্ধি পায় : কর্মক্ষেত্রে হোক, কী পড়াশোনায়, যেকোনো ফিল্ডে উন্নতি করতে গেলে মনোযোগ সহকারে সেই কাজটি করা একান্ত প্রয়োজন। না হলে যতই শ্রম করা হোক না কেন, কাঙ্ক্ষিত ফল মিলতে অনেক সময় লেগে যায়। আর এ ক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করতে পারে বই। কারণ প্রতিদিন বই পড়লে ব্রেনের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। ফলে উন্নতি ঘটে মনোযোগ ক্ষমতারও।

স্মৃতিশক্তির উন্নতি ঘটে : স্ট্রেস এবং অ্যাংজাইটি যত বাড়বে, তত স্মৃতিশক্তির ওপর কুপ্রভাব পড়বে। আর যদি ঠিক সময়ে মানসিক চাপকে নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারেন, তাহলে কিন্তু বিপদ। সেক্ষেত্রে মনে রাখার ক্ষমতা এতটাই কমে যাবে যে, দৈনন্দিন জীবন ব্যাহত হতে শুরু করবে। স্ট্রেস তো থাকবেই, তাহলে উপায়? প্রতিদিন কম করে ৩০ মিনিট সময় বই পড়ুন। এমনটা করলেই দেখবেন স্ট্রেস কমবে, অন্যদিকে স্মৃতিশক্তি আরো মজবুত হবে। তাই ঘুমতে যাওয়ার আগে প্রতিদিন ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘণ্টা পছন্দের যেকোনো বই পড়ার অভ্যাস করুন। সূত্র : ইন্টারনেট।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close