কার্গো ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি পেল ইউএস-বাংলা

প্রকাশ | ১৩ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের অন্যতম বেসরকারি উড়োজাহাজ সংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসকে কার্গো ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দিয়েছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়। সম্প্রতি এ অনুমতি দেওয়া হয় বলে গতকাল রোববার গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায় ইউএস-বাংলা। ফলে এখন থেকে যাত্রী পরিবহনের পাশাপাশি আমদানি-রফতানি পণ্য পরিবহন করবে বেসরকারি এই বিমান সংস্থাটি। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে ফ্লাইট পরিচালনা করে আসছে। বর্তমানে মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সারা বিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশের আকাশপথের পরিবহন যোগাযোগব্যবস্থা বন্ধ রয়েছে। একমাত্র ইউএস-বাংলা একটি ফ্লাইট সপ্তাহের প্রতি শনিবার ঢাকা-গুয়াংজু রুটে পরিচালনা করছে। এতে আরো বলা হয়, করোনা দুর্যোগে দেশের আমদানি-রফতানি সচল রাখার জন্য ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস সরকারের কাছে কার্গো ফ্লাইট পরিচালনার জন্য অনুমতি প্রার্থনা করে। সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে ইউএস-বাংলাকে ইতোমধ্যে কার্গো ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দিয়েছে সরকার। তাই আগামী সপ্তাহ থেকে যাত্রী পরিবহন ছাড়াও কার্গো পরিবহন শুরু করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস।

ইউএস-বাংলার চারটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে আপৎকালীন সময়ে বিভিন্ন দেশ থেকে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য বিশেষ করে মহামারি করোনাভাইরাসের সময়কালীন সময়ে স্বাস্থ্যসেবা সচল রাখতে চিকিৎসকদের জন্য প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসামগ্রী পিপিই, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ড গ্লোভস, মাস্কসহ নানা পণ্য আমদানি করা হবে। এ ছাড়া জরুরি রফতানি পণ্যসামগ্রী বিশেষ করে গার্মেন্ট পণ্য, পচনশীল দ্রব্য শাকসবজি ইত্যাদি বিদেশে রফতানিতে ভূমিকা রাখতে পারবেÑ ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস।

এয়ারলাইনসটির মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) মো. কামরুল ইসলাম বলেন, আমদানি-রফতানির মাধ্যমে দেশের অর্থনীতির চাকাকে সচল রাখতে ইউএস-বাংলা প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখতে পারবে। প্রতিটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফটে কার্গো কম্বাইন্ডে প্রায় ২০ টন কার্গো পরিবহন করতে পারবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে কার্গো পরিবহনে যেসব দেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি আছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস সেসব দেশে কার্গো পরিবহন করতে পারবে। প্রাথমিকভাবে এশিয়ার দেশগুলোতে বিশেষ করে সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, চীন, সৌদি আরব, থাইল্যান্ড, ভারত, কাতার, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরায় কার্গো পরিবহনের পরিকল্পনা করছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস।

 

"